Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ৩:৪২ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হলেন ফেরদৌস ও শাহ ফরহাদ নেতাজি'কে কেন রাষ্ট্রনায়কের মর্যাদা দেওয়া হল না, ক্ষুব্ধ মমতা সাংবাদিকদের একটা করে ফ্ল্যাট দেবে সরকার আ'লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর জনগণ শান্তিতে : কাদের ফেব্রুয়ারি মাসে বিশ্ব ইজতেমা করার সিদ্ধান্ত ডাকসু নির্বাচন, আগামী ১১ মার্চ বিশ্ব চিন্তাবিদের তালিকায় এবার শেখ হাসিনা  যুবলীগ ও আ'লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ১০ গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একসঙ্গে চলবে : প্রধানমন্ত্রী দুদকের পরিচালক সাময়িক বরখাস্ত

ভোগান্তি মাথায় নিয়েই কর্মস্থলে ফিরছেন কর্মজীবী মানুষ


ফারুক আহাম্মদ, গৌরীপুর(ময়মনসিংহ)

আপডেট সময়: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১১:২৯ এএম:
ভোগান্তি মাথায় নিয়েই কর্মস্থলে ফিরছেন কর্মজীবী মানুষ

স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি শেষ। ঈদের ছুটি কাটিয়ে বেশ কয়েক দিন যাবত কর্মস্থলে ফেরার পালা চলছে। ঈদের ছুটি শেষে রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় কর্মস্থলে ফিরছেন গৌরীপুরের কর্মজীবী মানুষ। যাত্রাপথের ভোগান্তি মাথায় নিয়েই কর্মস্থলে ফিরে যাচ্ছেন।

সরকারি অফিস-আদালতসহ বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বড় ছোট চাকুরিতে আছেন গৌরীপুরের অনেক কর্মজীবি মানুষ। সকলেরই ছুটি শেষ হয়েছে ৪ সেপ্টেম্বর (রোববার)। প্রথম কর্মদিবস সোমবার থেকেই অফিস খোলা তাই আবার কর্মমুখর হয়ে উটার কথা দেশের সকল সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্টান। কিন্তু ঈদের একদিন পর অফিস খুলায় অনেকেই অফিসে পৌছাতে পারেননি। এবার ঈদের ছুটির আগে-পরে সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে ৩ দিনের ছুটি পেয়েছেন মাত্র। স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে একদিন আগে বাড়িতে এসে আবার একদিন পরই চলে যেতে হবে ভাল ভাবে পরিবারের সাথে কথা বলার সময়ই করতে পারেননি।

এবার ছুটি কম থাকায় অনেকেই আবার ঈদের আগে বাড়ীতে আসেননি। অনেকেই হয়ত ঈদের পর বাড়ীতে গেছেন। আবার অনেকেই সামনে সাপ্তাহিক বন্ধ সহ কয়েকদিনের ছুটি নিয়ে আসবেন তাদের বাড়ীতে।  তবে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ অনেক প্রতিষ্ঠান খোলা হবে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে। 

এই কম সময়ের ছুটিতে অনেকেই আবার কর্মস্থলে ফিরে যেতে দেখা গেছে। কর্মস্থলে যাবার পালা এখনো শেষ হয়নি প্রতিদিন চলছে, আশাকরা যায় আগামি রবিবার ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। ঈদ উপলক্ষে মানুষের আসা যাওয়াকে কেন্দ্র করে পরিবহন ব্যবস্থার ওপর বাড়তি চাপ পড়ে। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি। নাড়ির টানে ট্রেন ও বাসের ছাদে করে এসেছেন শত শত যাত্রী। অবশেষে বাধা ভীগ্ন পেরিয়ে পরিবারের সাথে ঈদ উদযাপন হলো। ঈদ উদযাপন শেষে পরিবারের মায়া ত্যাগ করে আবার ফিরছেন কর্মস্থলে। আবার সেই পরিবহনে যুদ্ধ, বাস-ট্রেনের টিকিট পাওয়ার সমস্যা তো আছেই, ট্রেন, বাসে ভীর কাটিয়ে অতি কষ্টে যেতে হবে। ঈদের পরের দিন থেকে ট্রেন বাস ফাঁকা থাকার কথা থাকলেও আজ পর্যন্ত  ঈদের আগের মতই দেখা গেছে গৌরীপুরের বাস এবং ট্রেনে প্রচন্ড ভিড়।

গৌরীপুর রেল স্টেশনে গত রাত ৭ সেপ্টেম্বর বৃহসপতিবার  দুপুরে ঢাকা গামী বলাকা এক্সপ্রেস ও বিকালে মহুয়া এক্সপ্রেস ট্রেন এবং রাত ৮.৩০ এ চট্রগ্রাম অভিমুখি বিজয় এক্সপ্রেসে দেখা গেছে প্রচন্ড ভিড়। ৮ সেপ্টেমর সকালের ঢাকা গামী হাওর এক্সপ্রেসে দেখা গেছে প্রচন্ড ভিড় যা তিল ধারনের ঠাই নেই। ঢাকা, সিলেট, চট্রগ্রাম গামি বাসগুলো এর ব্যাতিক্রম না। ৪/৫ দিন পৃর্বেই টিকিট শেষ। তাই অনেক যাত্রী ময়মনসিংহ চলে যান সেখান থেকে অনান্য রুটের বাসে যার তার মত যাচ্ছেন। রাস্তায় পুলিশের ব্যাপক তদারকি থাকলেও কিছু কিছু অদক্ষ ও দুষ্ট প্রকৃতির ড্রাইভারের কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়। 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top