Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৭:৫৬ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
মহাজোটের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে যাওয়ার শিগগিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে  প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু আজ  ভোট পর্যবেক্ষণের জন্য আবেদন শেষ তারিখ ২১ নভেম্বর  আ'লীগ যত রকম ১০ নম্বরি করার করুক, ভোট দেবো, ভোটে থাকব : ড. কামাল হোসেন মহাজোটের আসন বণ্টনের আলোচনা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিকট চিঠি   ভাসানীর আদর্শকে ধারণ করে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হওয়ার আহ্বান  তরুণ ভোটারদের প্রাধান্য দিয়ে প্রণয়ন করা হচ্ছে আ'লীগের ইশতেহার  মওলানা ভাসানীর ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ  বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত করা হয়নি  দাবানলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪, নিখোঁজ সহস্রাধিক

দেশের তিন গুণীজনকে সম্মাননা জানাল আবাসন খাতের প্রতিষ্ঠান শেলেটক্


নিজস্ব প্রতিবেদক

আপডেট সময়: ৫ নভেম্বর ২০১৭ ১০:৫২ পিএম:
দেশের তিন গুণীজনকে সম্মাননা জানাল আবাসন খাতের প্রতিষ্ঠান শেলেটক্

রাজধানীর পান্থপথের শেলেটক্ লাউঞ্জে গতকাল অধ্যাপক রফিকুন নবী, অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত ও অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর হাতে শেলেটক্ পদক তুলে দেয়া হয়। অধ্যাপক রফিকুন নবীকে ২০১৫, অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাতকে ২০১৬ ও অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীকে ২০১৭ সালের জন্য শেলেটক্ পদকের জন্য নির্বাচিত করা হয়।

শেলেটকের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী কুতুবউদ্দিন আহমেদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক পরিকল্পনাবিদ ড. তৌফিক এম. সেরাজ উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পদক হস্তান্তর করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শেলেটকের পরিচালক তানভির আহমেদ ও পরিচালক ড. সামিয়া সেরাজ। শেলেটক্ পদক ও একটি করে ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয় এ তিন বিশিষ্টজনের হাতে।

২০১৫ সালের শেলেটক্ পদক লাভ করা অধ্যাপক রফিকুন নবী বর্তমানে ফ্রিল্যান্স আর্টিস্ট হিসেবে কাজ করছেন। টোকাই নামের কার্টুন চরিত্রটি তার অনবদ্য সৃষ্টি। গতকাল পদক পাওয়ার পর অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি বলেন, যদিও এ বয়সে উচ্ছ্বসিত হওয়াটা মানায় না, তবু এতদিন যারা পদকটি পেয়েছেন, তাদের পাশে আমার নাম থাকবে ভেবে গর্ববোধ হচ্ছে।

২০০৯ সালে জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলনসহ জলবায়ুবিষয়ক আরো কিছু আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত। ২০১৬ সালের জন্য শেলেটক্ পদক পাওয়া এ গুণীজন বলেন, আমি সরাসরি অ্যাক্টিভিস্ট হিসেবে কাজ না করলেও নীতিনির্ধারকদের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখি। শেলেটক্ পদক ২০১৭ পাওয়া অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী লেখক ও প্রাবন্ধিক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ইমেরিটাস অধ্যাপক বলেন, বুদ্ধি ও হূদয়কে এক করে কাজ করলে সফলতা পাওয়া সম্ভব।

দেশের গুণীজনদের সম্মাননা জানাতে ১৯৯৮ সালে শেলেটক্ পদক প্রবর্তন করা হয়। ১৯৯৮ সালে কবি শামসুর রাহমান, ১৯৯৯ সালে রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী কলিম শরাফী, ২০০০ সালে চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী, ২০০১ সালে নজরুলসংগীতশিল্পী ফিরোজা বেগম, ২০০২ সালে কথাসাহিত্যিক রাবেয়া খাতুন, ২০০৩ সালে বিজ্ঞানী ও শিশু সাহিত্যিক জাফর ইকবাল, ২০০৪ সালে কৃষি উন্নয়নকর্মী শাইখ সিরাজ ও চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার, ২০০৫ সালে নাট্যকার মমতাজ উদ্দিন আহমদ ও চলচ্চিত্রকার সুভাষ দত্ত, ২০০৬ সালে শিক্ষাবিদ আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ এবং নাট্যব্যক্তিত্ব ও অভিনেতা আবুল হায়াত, ২০০৭ সালে স্থপতি মঈনুল হোসেন ও কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ, ২০০৮ সালে বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমিন, ২০০৯ সালে অধ্যাপিকা সিদ্দিকা কবীর, ২০১০ সালে অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অর্থনীতিবিদ ড. আতিউর রহমান, ২০১১ সালে সিআরপির প্রতিষ্ঠাতা ভেলেরি এ. টেইলর, ২০১২ সালে নগরবিদ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, ২০১৩ সালে খ্যাতনামা আইন বিশেষজ্ঞ ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ও ২০১৪ সালে সমাজসেবক ডা. সামন্ত লাল সেন শেলেটক্ পদকে ভূষিত হন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top