Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮ , সময়- ৬:৫১ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
পরমাণু পরীক্ষা স্থগিত করেছে উত্তর কোরিয়া  উলটো পথে চলাচল : রাস্তায় নৈরাজ্য, যেন আইন ভাঙার হিড়িক সকল রোহিঙ্গাকে স্থায়ীভাবে ফেরত নিতে কমনওয়েলথের আহ্বান ইরানের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেছেন নৌবাহিনী প্রধান  কোনো ধরনের সহিংসতার অপচেষ্টা রুখে দিতে পুলিশ প্রস্তুত : আছাদুজ্জামান মিয়া গাজীপুর সিটি : আচরণবিধি লঙ্ঘনে চার মেয়র প্রার্থীকে সতর্কীকরণের চিঠি   শেখ হাসিনা হলেন দেশের জন্য ত্যাগের মূর্ত প্রতীক : মতিয়া চৌধুরী ভারতে শিশুকে ধর্ষণের শাস্তি এবার মৃত্যুদণ্ড  প্রধানমন্ত্রী ফিরলেই নবম ওয়েজ বোর্ড কার্যকরের প্রজ্ঞাপন জারি : তথ্যমন্ত্রী সন্ত্রাস-চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া আহ্বান : সাবের হোসেন চৌধুরী

কুকুরের মাংস খাওয়া নিয়ে সংগীত শিল্পী প্রিতম এর পোষ্ট


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২০ নভেম্বর ২০১৭ ৫:৩৯ পিএম:
কুকুরের মাংস খাওয়া নিয়ে সংগীত শিল্পী প্রিতম এর পোষ্ট

জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী প্রিতম। মাঝে মাঝে  তিনি তাঁর ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে ব্যক্তিগত ও ক্যারিয়ার নিয়ে অনেক কথা লিখে থাকেন। শুধু তাই নয় দেশের সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয়ে তাকে লেখালেখি করতে দেখা যায়। গতকাল দেখা গেল সমাজের মানসিক স্থাস্থ্য নিয়ে কিছু কথা শেয়ার করতে। তিনি লিখেছেন, আমাদের সমাজের মানসিক স্বাস্থ্য ভেঙে পড়েছে তার চিকিৎসা দরকার।

লোভ হিংসা বা ঘৃনা করারও লাগাম দরকার। কুকুরের মাংসকে খাসির মাংস বলে হোটেলে খাওয়ানোর কথা শুনেছি অনেক আগেই। বাদুর এর মাংসকে মুরগির মাংস হিসেবে পরিবেশন করতেও শুনেছি। কাল সংবাদে পড়লাম বিড়ালের মাংসকে খাসির মাংস হিসেবে খাওয়াচ্ছে এক রেস্টুরেন্ট সাথে গ্রেফতার করা আসামী ও জব্দকৃত বিড়াল ও তার মাংস। শুধু টাকার লোভেই কিছু মানুষ কি না কি খাওয়াচ্ছে।

বাড্ডায় স্ত্রী তার স্বামী ও সন্তানকে খুন করে লাশের পাশেই প্রেমিকের সাথে দৈহিকমিলন ঘটিয়েছেন গতমাসে। স্বামীর অযত্ন ও অপমানই তাকে পরকিয়ায় ঠেলে দিয়েছে বলে স্ত্রী স্বীকার করেছেন। মন ও শরীরের সাথে কারো সাথে থাকতে না চাইলে সেই ঘৃনা বিচ্ছেদ ঘটাতে পারে,খুন কেন?এক বন্ধু অপর বন্ধুকে খুন করে নিজের খাটের নিচে মাটি খুঁড়ে তাতে পুতে রেখেছেন।


তিনি আরো লিখেছেন, লাশচাপা মাটির উপরেই তিনি ঘুমিয়েছেন, নামাজ পড়েছেন আবার পাক্কা মুসল্লি সেজে নিহতের আত্মীয় স্বজনের সাথে হারানো বন্ধুর খোঁজ খবরও নিয়েছেন। পুলিশের কাছে গ্রেফতার হয়ে এসব স্বীকারও করেছেন। যে কারনেই হোক আমাদের সমাজের সাধারন মানুষগুলোর অপরাধ প্রবনতা বাড়ছে ভয়ংকর গতিতে। এদের কেউই কোন রাজনৈতিক বা সন্ত্রাসী সংগঠন এর সদস্য নন। কিন্তু এরা পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বিশ্বাস ঘাতক। এরকম অনেক ঘটনাই চারপাশে অহর্নীশি ঘটছে। কিছু প্রকাশ পায় কিছু পায়না।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top