Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৯:০৩ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
জোটের শরিকরা আনুমানিক ৬৫ থেকে ৭০ আসন পেতে পারে : ওবায়দুল কাদের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মনোনয়নে ‘চুলচেরা বিশ্লেষণ’ করছে আওয়ামী লীগ  আ'লীগে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৮,  বিএনপি জোটে ১১   আসন্ন বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত | প্রজন্মকণ্ঠ এ পর্যন্ত ১১টি টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ  আতঙ্কিত ও ক্ষুব্ধ রোহিঙ্গারা, প্রত্যাবাসন স্থগিত  ক্ষমা চাইতে ফখরুলকে ছাত্রলীগের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলো ছাত্রলীগ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচালের যড়যন্ত্র সফল হবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০ ডিসেম্বরই নির্বাচন, পেছানোর সুযোগ নেই : নির্বাচন কমিশন সচিব প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী রবিবার

NRB কমার্শিয়াল ব্যাংকের এমডিকে অপসারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ৬ ডিসেম্বর ২০১৭ ৩:৫৫ পিএম:
NRB কমার্শিয়াল ব্যাংকের এমডিকে অপসারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক

অবশেষে প্রবাসীদের কল্যাণে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) দেওয়ান মুজিবুর রহমানকে ঋণ সংক্রান্ত অনিয়ম এবং দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার কারণে অপসারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

আগামী দুই বছর তাকে ব্যাংক ও সব ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠানে চাকরিতে নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনায় তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।  বুধবার তাকে অপসারণের চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা।

শুভঙ্কর সাহা আরও বলেন, ‘এখন তিনি চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের কাছে আপিল করতে পারবেন।’

এর আগে আমানতকারীর স্বার্থ রক্ষার ক্ষেত্রে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ উল্লেখ করে গত ২০শে মার্চ দেওয়ান মুজিবুর রহমানকে নোটিশ দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। নোটিশে বলা হয়েছিল মার্কেন্টাইল ব্যাংকের চেয়ারম্যান শহীদুল আহসানের স্বার্থ-সংশ্নিষ্ট এজি এগ্রোকে প্রিন্সিপাল শাখা থেকে ১৮৩ কোটি টাকা ও চন্দ্রগঞ্জ শাখা থেকে বেগমগঞ্জ ফিডের নামে ১১৮ কোটি টাকাসহ বিভিম্ন শাখায় ৭৪৯ কোটি টাকার ঋণ অনিয়মের সঙ্গে এমডির সংশ্নিষ্টতা পাওয়া গেছে। এ ছাড়া বেনামি শেয়ার ধারণ, পরিচালক না হয়েও পর্ষদ সভায় উপস্থিতিসহ বিভিন্ন অনিয়মের তথ্য গোপন করা হয়েছে।

নোটিশের জবাব না দিয়ে তিনি এর কার্যকারিতা স্থগিতের আবেদন করেন হাইকোর্টে। আদালত থেকে চূড়ান্ত রায় নিজের পক্ষে না আসায় তিনি পরে নোটিশের জবাব দিয়েছিলেন। ওই জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। 

গত ২৯ অক্টোবর বেসরকারি খাতের এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের অনিয়মের ঘটনায় চরম অসন্তোষ প্রকাশ করে অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী সংসদীয় কমিটি। ওইদিন ব্যাংকটির ঋণ অনিয়মের ঘটনা শিউরে ওঠার মতো এবং আর্থিক খাতকে ঝুঁকিতে ফেলেছে বলে মন্তব্য করেছিলেন কমিটির সভাপতি ড. আবদুর রাজ্জাক। সার্বিক অনিয়মের বিষয়ে অধিকতর তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ডিসেম্বরের মধ্যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ ব্যাংককে নির্দেশ দিয়েছিল কমিটি।

ওই সময় আরও বলা হয়, নানা অনিয়মের কারণে ব্যাংকটির খেলাপি ঋণ হু হু করে বেড়ে ১৯২ কোটি টাকা হয়েছে, যা মোট ঋণের ৪ দশমিক ৯৫ শতাংশ। খেলাপি ঋণে নতুন ব্যাংকগুলোর মধ্যে ফারমার্স ব্যাংকের পরই ব্যাংকটির অবস্থান। গত বছরের ডিসেম্বরে খেলাপি ঋণ ছিল ১৯ কোটি টাকা। গত জুনে বেড়ে ১৭২ কোটি টাকা হয়। কার্যক্রম শুরুর কিছুদিনের মধ্যে ব্যাংকটির পরিচালকদের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্ব, ঋণ বিতরণে অনিয়ম ও অভ্যন্তরীণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার ঘাটতি দেখা দেয়।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top