Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , সময়- ৭:৩৩ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বিতর্ক কেন ? বিএনপি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | প্রজন্মকণ্ঠ পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আবেদন খালেদা জিয়ার | প্রজন্মকণ্ঠ খালেদা জিয়া কারাগারের বাইরে থাকার সময়ও জনগণ তার ডাকে সাড়া দেয়নি : ওবায়দুল কাদের বিএনপি-জামায়াত ক্লিনহার্ট অপারেশন চালিয়ে আ'লীগের অসংখ্য নেতাকর্মীকে নির্যাতনের শিকার করেছিল : প্রধানমন্ত্রী  ধর্মমন্ত্রী ও ভূমিমন্ত্রীর  কড়া সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল করেছে বিএনপি আ'লীগের প্রতিনিধিদলের উত্তরবঙ্গ সফর শুরু । প্রজন্মকণ্ঠ   বিজিবি-বিএসএফ সম্মেলন : সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার অঙ্গীকার | প্রজন্মকণ্ঠ  সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে মাঠে নামছে স্বাগতিক বাংলাদেশ, আগামীকাল | প্রজন্মকণ্ঠ

নবজাতকের মাথা কেটে ফেলল 'ডাক্তার'


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭ ৩:১৩ পিএম:
নবজাতকের মাথা কেটে ফেলল 'ডাক্তার'

মানিকগঞ্জের বালিরটেক বাজারের একতা ক্লিনিকে সিজারের সময় মাথার কিছু অংশ কেটে ফেলায় নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ডাক্তারের অবহেলাকেই দায়ী করছেন নবজাতকের পরিবার।

জানা যায়, রবিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে সদর উপজেলার ভারারিয়ার গ্রামের প্রবাসী মিশুক রানার স্ত্রী মাকসুদা(২৪) বালিরটেক বাজারের একতা ক্লিনিকে ডাক্তারের কাছে আসেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সব ঠিক আছে বলে অপারেশন করেন ডাঃ মো. নাজমুল হাসান।  এসময় ডাক্তারের কাচির আঘাতে নবজাতকের মাথায় মারাত্বক ক্ষত হয়।  ডাঃ নবজাতকের মাথায় সেলাই দিয়ে ব্যান্ডেজ করে দ্রুত সটকে পড়েন। রক্তক্ষরনে শিশুটির অবস্থার অবনতি হলে ডাঃ বলেন ঠান্ডাজনিত কারণে এ অবস্থা হয়েছে তাকে ঢাকা নেওয়ার পরামর্শ দেন।সোমবার সকাল ৭টায় ঢাকা নেওয়ার পথে সে মারা যায়। 

মৃত নবজাতকের মামা রাসেল বলেন, মৃত্যুকে মেনে নিয়ে শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে যাই। কিন্তু  গোসল করানোর সময় শিশুর মাথায় সেলাই ও ক্ষতচিহ্ন দেখে বুঝতে পারি ডাক্তরের ভুলে কাচির আঘাতে শিশুটি মারা গেছে।  সুচতুর ডাক্তার বিষয়টি গোপন রেখে মাথায় ব্যান্ডেজ করে দিয়েছিল। যা আমরা আগে দেখিনি। মাথায় সেলাই ও ক্ষতচিহ্ন দেখে নবজাতক কে পুনরায় ক্লিনিকে নিয়ে আসি। কর্তৃপক্ষ কোন দায়িত্ব নিচ্ছে না।  

স্বজনরা আরও জানান, যে ডাক্তার ও নার্স অপারেশন করেছেন তারা ভুয়া। 

ক্লিনিকের মালিক মো. ফারুক হোসেন বলেন, ডাক্তার ও নার্স নিয়োগের সময় তাদের কোন কাগজপত্র রাখা হয়নি। ডাঃ মোঃ নাজমুল হাসান অপারেশন  করেছেন। তিনি অপারেশনের ডাক্তার কিনা আমি জানি না। 

শিশু মৃত্যুর বিষয়ে অভিযুক্ত ডাঃ মো. নাজমুল হাসান এর মুঠোফোনে চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

পুলিশ জানায় প্রাথমিকভাবে শিশুটির মাথায় ক্ষত ও সেলাইয়ের চিহ্ন পাওয়া গেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

 

সূত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top