Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮ , সময়- ৪:৪১ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলী ঢাকায় সংবর্ধনার দরকার নেই, জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবর্ধনার দরকার নেই, জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধের মামলায় ৩৪তম রায়ের অপেক্ষা প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অভিমুখে জনস্রোত নেতৃত্ব নিয়ে দ্বন্দ্ব আরও প্রকট : ভেস্তে যেতে বসেছে যুক্তফ্রন্টের উদ্যোগ শেখের বেটি মোক নয়া ঘর দেল বাহে, মোক দেখার কাইয়ো ছিল না ‘স্বপ্ন’ প্রকল্পটির সুফল পাচ্ছে সাতক্ষীরা ও কুড়িগ্রাম জেলার ৮,৯২৮ দরিদ্র নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা দিতে প্রস্তুত আওয়ামী লীগ ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করে দিল্লির গোলামি করতে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি : গয়েশ্বর

স্বাধীনতার মাস মার্চে ছাত্রলীগের সম্মেলন


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ৬ জানুয়ারী ২০১৮ ২:৪৯ পিএম:
স্বাধীনতার মাস মার্চে ছাত্রলীগের সম্মেলন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নেত্রীর (শেখ হাসিনা) ইচ্ছা, স্বাধীনতার মাস মার্চে ছাত্রলীগ তাদের সম্মেলন করুক। এসময় তিনি ছাত্রলীগকে সম্মেলনের তারিখ ঠিক করতে বলেন।

শনিবার (৬ জানুয়ারি) বেলা পৌনে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালিপূর্ব সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। জাতীয় সংগীতের তালে তালে জাতীয় ও ছাত্রলীগের দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর র‌্যালি শুরু হয়। পরে বেলুন ও পায়রা উড়ানো হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগের এ কমিটির আমলে কিছু নেগেটিভ বিষয় থাকলেও অর্জন ছিল সবচেয়ে বেশি। তাদের আমলে সংগঠন বিশাল রূপ নিয়েছে। এটা তাদের অর্জন। আমি ছাত্রলীগকে বলবো অনতিবিলম্বে নির্বাহী কমিটির সভা ডেকে জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি নিন। নেত্রীর ইচ্ছা, আগামী মার্চ মাসে সম্মেলন হোক। এসময় তিনি ছাত্রলীগকে সম্মেলনের তারিখ ঠিক করতে বলেন।

ছাত্রলীগের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘তোমরা এখন সম্মেলন না করলে কখন করবে? বর্তমান কমিটিতে যারা আছ, তারা তো মূল দলে অনেক জুনিয়র হয়ে যাবে। আওয়ামী লীগ সব সময় তরুণ নেতৃত্ব চায়। তোমরা এখন নেতৃত্বে না আসলে কবে আসবে? শিগগিরই সম্মেলন করবে।’

তিনি বলেন, ছাত্রলীগে বিশৃঙ্খল লাখো কর্মীর দরকার নেই। শৃঙ্খল কর্মী যদি কম হলেও সমস্যা নাই। ছাত্রলীগকে আরো সুশৃঙ্খল ও সুসংগঠিত হতে হবে। গুটি কয়েকের জন্য সরকারের অর্জন ম্লান হতে পারে না। যারা অপকর্ম করবে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। যে ছাত্রলীগের অতীত গৌরবমন্ডিত, সেই ছাত্রলীগের বর্তমান কলঙ্কিত হতে পারে না। যারা অপকর্ম করবে তাদের ছাত্রলীগে থাকার অধিকার নাই।

মন্ত্রী বলেন, ‘শেখ হাসিনার সাহসিকতা থেকে ছাত্রলীগকে শিক্ষা নিতে হবে। এমন কোনো কাজ করা যাবে না, যাতে আওয়ামী লীগের বদনাম হয়।’


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top