Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮ , সময়- ৪:৪৯ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলী ঢাকায় সংবর্ধনার দরকার নেই, জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবর্ধনার দরকার নেই, জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধের মামলায় ৩৪তম রায়ের অপেক্ষা প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অভিমুখে জনস্রোত নেতৃত্ব নিয়ে দ্বন্দ্ব আরও প্রকট : ভেস্তে যেতে বসেছে যুক্তফ্রন্টের উদ্যোগ শেখের বেটি মোক নয়া ঘর দেল বাহে, মোক দেখার কাইয়ো ছিল না ‘স্বপ্ন’ প্রকল্পটির সুফল পাচ্ছে সাতক্ষীরা ও কুড়িগ্রাম জেলার ৮,৯২৮ দরিদ্র নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা দিতে প্রস্তুত আওয়ামী লীগ ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করে দিল্লির গোলামি করতে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি : গয়েশ্বর

সরকার উন্নয়ন নয়, দুর্নীতির মেলা করেছে : মওদুদ


অনলাইন ডেষ্ক

আপডেট সময়: ১৩ জানুয়ারী ২০১৮ ৪:২৭ পিএম:
সরকার উন্নয়ন নয়, দুর্নীতির মেলা করেছে : মওদুদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, সরকার যে উন্নয়ন মেলা করেছে, সেটা আসলে দুর্নীতি মেলা। কেননা, সরকার সব বড় বড় প্রকল্প হাতে নিচ্ছে। আর বড় বড় প্রকল্প মানে বেশি বেশি দুর্নীতি। বড় বড় প্রকল্প মানে বেশি বেশি ঘুষ। এসব প্রকল্পের মাধ্যমে জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করা হচ্ছে।

শনিবার (১৩ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট নামের সংগঠন আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছেন। কিন্তু সেখানে জনগণের দুঃখ কষ্টের কোনো প্রতিফলন নেই। তার ভাষণে কেবল তার সরকারের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়েছে।
মওদুদ আহমদ বলেন, সরকারের চার বছরে প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে নির্বাচন নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার প্রয়াস চালিয়েছেন। ভাষণে শেখ হাসিনা বছরের শেষ দিকে অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নির্বাচরে আগেও নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাতে সব দলের অংশগ্রহণের আশা প্রকাশ করেন। নির্দলীয় সরকারের অধীনে না হওয়ায় দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছিল বিএনপি। এবারও তারা একই দাবি তুলেছে, তার প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, নির্দলীয় সরকার সংবিধানে নেই।

তিনি বলেন, বর্তমান সংসদের প্রায় সব সদস্যই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের। তারপরও কোরাম (৬০ সদস্য) সংকট হয়। কিভাবে তিনি সংসদ চালান, ভাষণে তা বলেননি।

মাজদার হোসেন মামলার রায়ের মাধ্যমে বিচারবিভাগ পৃথকীকরণের মৃত্যু হয়েছে, তা বলেননি। দেশের গণতন্ত্র, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই, তাও বলেননি।

বর্তমান সংসদে অনির্বাচিত সংসদ সদস্য বেশি, কি করে তারা নির্বাচিত হলেন জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী তা বলতেও ভুলে গেছেন।

মওদুদ আহমদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে বলেছেন নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের সুযোগ সংবিধানে নেই। তিনি আসলে এ কথা বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করেছেন। তিনি যদি সবকিছু ঊর্ধ্বে উঠে সবার দুঃখ কষ্টের কথা বলতেন তবে জনগণ বাহবা দিতো। ভাষণে যদি নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের রূপরেখা দিতেন, আমরাও বাহবা দিতাম। কাজেই তার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণ জনগণের গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেননি। কেননা, তার ভাষণে রাষ্ট্রীয় ব্যাংক ফুলকা হয়ে গেছে, বিএনপিকে নিশ্ছিন্ন করে দেওয়ার মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন হচ্ছে, ছাত্রলীগ-যুবলীগের টেন্ডারবাজী, ব্যবস্থা দখল, দোকান দখল, ধর্ষণ, গুম, খুনের বিষয় উঠে আসেনি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top