Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৮:২৫ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন নির্বাচনি জোটের শরিক জাতীয় পাটি পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) আজ  প্রধানমন্ত্রীর হাতে ৩৮টি আসনের তালিকা তুলে দিয়েছেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী হেলমেট পরে হামলার নির্দেশ দিয়েছিল বিএনপি নেতারা সেই তৃতীয় শক্তির নেতারা আজ কে কোথায় ?  বিদ্যুৎ খাতে দক্ষিণ কোরীয় বিনিয়োগ চাইলেন প্রধানমন্ত্রী বিদেশি টিভি চ্যানেলে দেশিপণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধের নির্দেশ অধিকাংশ ইসলামী দলগুলি ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগের সঙ্গে | প্রজন্মকণ্ঠ গত পাঁচ বছরে যেসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেছে আ'লীগ সরকার | প্রজন্মকণ্ঠ #মি টু ঝড় এখন বাংলাদেশে 

রঙের পাখি বাজরিগার


আবু সালেহ মূসা

আপডেট সময়: ২৭ জানুয়ারী ২০১৮ ৪:১১ পিএম:
রঙের পাখি বাজরিগার

পাখিটির নাম বাজরিগার। লোক মুখে লাভ বার্ড বলেও পরিচিত। যদি ও লাভ বার্ড আসলে আরেকটা প্রজাতি। 

তো ফিরে আসি বাজরিগারে। বড় নাম বলে অনেকে এক বাজরি বলেও ডাকে। এরা মূলত আমাদের দেশীয় পাখি না, তা সবাই জানি। এদের বংশীয় পরিচয় হল এরা অস্ট্রেলিয়ান। অস্ট্রেলিয়ার বনে এদের বাস হলেও সময়ের আবর্তে এখন সৌখিন মানুষদের বাসায় এদের বাস। ঘরে বাস করতে করতে এদের এমনই অবস্থা দাড়িয়েছে যে, এরা এখন প্রকৃতির কাছেই অপরিচিত।

আমাদের দেশে এই পাখির জনপ্রিয়তা শুরু হয় বাবু নামের এক ব্যক্তির হাত ধরে। যাকে সুলতান বাবু বলেই চিনে এই পাখির সংশ্লিষ্ট সকলে। মীরপুরে যিনি খামার করেছেন পালন করছেন এগুলোকে। তবে এই পাখির জনপ্রিয়তা পাবার প্রধান কারণ আসলে এর রঙ। লাল এবং গোলাপি ব্যতিত সকল রঙ ই এই পাখি পেয়ে থাকে। তাই একেক খাচায় একেক রঙ দেখে অনেকেই ভাবে এগুলো অন্য কোন প্রজাতি। আর রঙ, প্রজাতিভেদে এদের অনেক শ্রেণীবিভাগ ও করা হয়েছে। লুটিনো, পাইড এগুলো রঙের ভিত্তিতে আর ক্রেস্টেড, ইয়োলো ফেস এগুলো জাতের ভিত্তিতে।

তবে হ্যা, এই পাখি পালতে বন বিভাগের কোন আপত্তি নেই কারণ এগুলো একে তো আমাদের দেশীয় না আর তাছাড়া এগুলো এখন বনের পাখিও না। তবে অনেকেই অনেক পরিশ্রম করে এগুলোকে পোষ মানিয়েছে যার জন্য টানা ৬-৮ মাস সময় প্রয়োজন। আবার অনেকে কৃত্তীম চাহিদা তৈরি করে বছরে ২-৩ বার এদের দিয়ে ডিম ফুটিয়ে থাকে। স্বাস্থ্য, মেটিং এর কাল এবং খাবার তালিকার উপর ভিত্তি করে এরা ৪-১২ টি ডিম দিয়ে থাকে এক বার সময় কালে। যেগুলো ২০-২১ দিন ভিতর ফোটে। আর প্রতিটা ডিম ১-৩ দিন পর পর দিয়ে থাকে। চীনা, কাউন, গুজিতিল এদের পছন্দের খাবার। এছাড়াও পোলাওর ধান, তিশি, নানা রকম স্ববজি এদের প্রিয় খাবারের তালিকায় রয়েছে। অনেকে আবার আপেল, ডিম, দই এগুলোতে অভ্যস্ত করে ফেলে এদের।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top