Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১:০২ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
নাজমুল হুদাকে ৪৫ দিনের মধ্যে আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ  নির্বাচনকালীন সম্ভাব্য নাশকতা মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার  একজন শিশুকে পিইসি পরীক্ষার জন্য যেভাবে পরিশ্রম করতে হয়, সত্যিই অমানবিক : সমাজকল্যাণমন্ত্রী নির্বাচনকে সামনে রেখে আদর্শগত নয়, কৌশলগত জোট করছে আওয়ামী লীগ : সাধারণ সম্পাদক থার্টিফার্স্ট উদযাপন নিষিদ্ধ : স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের স্বার্থে পেশাদারিত্ব বজায় রাখবে সেনাবাহিনী  মহাজোটের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে যাওয়ার শিগগিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে  প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু আজ  ভোট পর্যবেক্ষণের জন্য আবেদন শেষ তারিখ ২১ নভেম্বর  আ'লীগ যত রকম ১০ নম্বরি করার করুক, ভোট দেবো, ভোটে থাকব : ড. কামাল হোসেন

দেশীয় প্রিন্টিং সেবা খাতের উন্নয়নে কাজ করছি | প্রজন্মকণ্ঠ  


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ৭:২৮ পিএম:
দেশীয় প্রিন্টিং সেবা খাতের উন্নয়নে কাজ করছি | প্রজন্মকণ্ঠ  

মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড চালু করেছে ‘উদয়ন’ নামে নতুন একটি প্রকল্প। ব্যাংকটি এ প্রকল্পের আওতায় দেশের শিক্ষিত মেধাবী তরুণদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলার নিমিত্তে ব্যবসা শুরুর জন্য অর্থ সহায়তা দিচ্ছে। মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড এরই মধ্যে নতুন কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে সিড ক্যাপিটাল হিসেবে অর্থ বিনিয়োগ করেছে। ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান প্রিন্টমার্ক লিমিটেড ব্যাংকটির বিনিয়োগ পেয়েছে।

এক সাক্ষাত্কারে প্রিন্টমার্ক লিমিটেডের কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত জানান এর প্রতিষ্ঠাতা ইব্রাহিম খন্দকার রিয়াদ। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বকুল রায়

প্রিন্টমার্ক লিমিটেড সম্পর্কে বলুন

যুগের পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষকে আধুনিক সেবা প্রদানের লক্ষ্যে সৃজনশীল ধারণা নিয়ে প্রিন্টমার্ক লিমিটেডের জন্ম। আমরা ডিজাইন, প্রিন্টিং এবং প্রমোশনাল সার্ভিসের জন্য যেকোনো ধরনের সেবা সরবরাহ করছি।

এমন একটি উদ্যোগ নিয়ে আগ্রহী হলেন কেন? 

বাংলাদেশের প্রিন্টিং ব্যবসায় আধুনিকতার ছোঁয়া দেয়ার মূল লক্ষ্য প্রিন্টমার্ক টিমের। বর্তমানে প্রিন্টিং ব্যবসাকে খুব একটা মূল্যায়ন করা হয় না। আধুনিক প্রযুক্তি এবং মেশিনারিজের পাশাপাশি শিক্ষিত কর্মকর্তা এবং কর্মচারী দ্বারা প্রিন্টমার্ক ব্যবসা পরিচালনা করছে। পারিবারিকভাবে সবাই চাইত আমি সরকারি বা বেসরকারি চাকরি করি। কিন্তু আমার উদ্দেশ্য ছিল নিজে কিছু করব এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা। বাংলাদেশের প্রিন্টিং সেবা খাতে উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে প্রিন্টমার্ক লিমিটেড নামে প্রিন্টিং স্টার্টআপের এ যাত্রা।

প্রিন্টমার্কের কী কী পণ্য ও সেবা রয়েছে?

প্রিন্টমার্কের পণ্য ও সেবাকে পাঁচ ভাগে বিভক্ত করা যায়। 

প্রথমত. বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের জন্য অপরিহার্য বিজনেস এবং আইডি কার্ড, লেটারহেড বা ছাপানো নাম-ঠিকানা, প্রেজেন্টেশন ফোল্ডার্স, নোট প্যাড, সিডি কাভার লোগোসহ কোম্পানি প্রোফাইল ও কোম্পানি নিউজ লেটারসহ যাবতীয় প্রিন্টিং পণ্য সরবরাহ করছি। 

দ্বিতীয়ত. আমরা ক্যাম্পেইন বা প্রমোশনাল ব্যাগ, মেনু কার্ড, টেবিল টপার, পোস্টারসহ সব ধরনের ব্যানার সরবরাহ করছি। 

তৃতীয়ত. শিক্ষামূলক উপাদান যেমন প্রশিক্ষণ, গবেষণা ও গল্পের বইয়ের পাশাপাশি প্রশিক্ষণ মেনুয়াল সরবরাহ করি। 

চতুর্থত. উপহারসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ডিজিটাল প্রিন্টিং পণ্য যেমন— র্যাপিং পেপার, ইনোভেটিভ বক্স, গ্রিটিং কার্ড, ডেস্ক ক্যালেন্ডার, স্টিকার, জন্মদিনের কার্ড ও প্রিন্টেড চাবির রিং সরবরাহ করছি। 

পঞ্চমত. এসবের বাইরে আমাদের কিছু সেবা রয়েছে যেমন— হলিডে কার্ড, ইভেন্ট ব্যবস্থাপনার কাজে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন প্রিন্টিং উপাদান আমরা সরবরাহ করি।

আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্মী সংখ্যা কত?

শিক্ষিত এবং দক্ষ কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়ে প্রিন্টমার্কের কার্যক্রম একটি পারিবারিক পরিবেশের মধ্য দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। প্রিন্টমার্ক লিমিটেডে স্থায়ীভাবে ২৪ জন কাজ করছেন। এছাড়া চুক্তিভিত্তিক কয়েকজন কর্মী রয়েছেন। ভবিষ্যতে আরো কিছু ক্রিয়েটিভ প্রফেশনাল বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রিন্টমার্ক  কী ধরনের মেশিনারিজ ও প্রযুক্তি ব্যবহার করছে?

প্রিন্টমার্কের অবকাঠামো বলতে এখন জার্মানির তৈরি একটি হাইডেলবার্গ সোর্ডজ বাই-কালার মেশিন, একটি এমওই সিঙ্গেল কালার মেশিন এবং একটি ফ্রেব্রিট মেশিন আছে। এছাড়া বাঁধাই কাজ করার জন্য একটি চায়না কাটিং, বুক ফোল্ডিং, অটো গ্লু, পাঞ্চ এবং পারফোরেশন মেশিন রয়েছে।

প্রিন্টমার্কের গ্রাহক কারা?

প্রিন্টিং এবং ডিজাইনের জন্য প্রিন্টমার্কের গ্রাহক হচ্ছে ব্যাংক, বীমা এবং খাবার ব্যবসায়ী। সেবা প্রদানকারী গ্রাহকদের মধ্যে অন্যতম ওয়েলফুড, বেসিক ব্যাংক, ডার্ড গ্রুপ, বাগডুম এবং প্রাণ।   

প্রিন্টমার্ক নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

বড় অর্থায়ন পেলে আরো আধুনিক কিছু মেশিন নিয়ে দেশের মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে চাই। বর্তমানে গ্রাহকদের ভালো মানের পণ্য ও সেবা দিয়ে আমরা সামনে এগিয়ে যেতে নিরন্তর কাজ করছি।

প্রিন্টিং ব্যবসা খাতের কী ধরনের ঝুঁকি রয়েছে?

প্রযুক্তি পরিবর্তন এবং প্রচার-প্রচারণা এখন অনলাইনে হচ্ছে, এজন্য অনেকাংশে প্রিন্টিং কাজের প্রয়োজনীয়তা কমে যাচ্ছে। এছাড়া প্রিন্টিং ব্যবসা খাতে এক ধরনের অসুস্থ প্রতিযোগিতা বিরাজ করছে।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ‘উদয়ন’ প্রকল্প আপনার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কতটুকু সহায়তা দিতে পেরেছে?

মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেডের ‘উদয়ন’ প্রকল্পে যখন প্রিন্টমার্ক লিমিটেডকে অন্তর্ভুক্ত করা হলো, সেটা ছিল এক অন্য রকম অভিজ্ঞতা। এ প্রকল্পের আওতায় প্রথম অর্থায়ন করা হয় প্রিন্টমার্ক লিমিটেডকে। যখন বিনিয়োগের অর্থ আমার অ্যাকাউন্টে ঢুকেছিল, সে অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। সত্যি বলতে ব্যবসা শুরুর জন্য আমি কোথাও থেকে কোনো সহায়তা পাইনি। 

কিন্তু উদয়ন প্রকল্পের আওতায় মার্কেন্টাইল ব্যাংক একটা বড় অংকের বিনিয়োগ করেছে। এ বিনিয়োগ পাওয়ার জন্য আমাকে কাঠখড় পোহাতে হয়নি। বরং ব্যাংকের পক্ষ থেকেই সম্ভাবনাময় স্টার্টআপ হিসেবে প্রিন্টমার্ককে খুঁজে নেয়া হয়। আমি মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেডের কাছে কৃতজ্ঞ। এ বিনিয়োগ আমার স্বপ্ন বাস্তবায়নকে আরো উৎসাহিত করেছে। ধন্যবাদ জানাই মার্কেন্টাইল ব্যাংককে। তথ্য- বণিক বার্তা


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top