Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১১:২৩ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ভারতের সেনার অস্ত্র ভাণ্ডারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত ৬ আহত অনেক স্কাইপি বন্ধ করে সরকার ঘৃণ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করল : রিজভী টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২ : ইয়াবা ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার নৌকা থেকে যারা ধানের শীষে তারা ‘ভণ্ড’ ও ‘প্রতারক’’ | প্রজন্মকণ্ঠ আস্থার প্রতীক নৌকা আর ধানের শীষ | প্রজন্মকণ্ঠ ভারতের ‘সাহায্য প্রয়োজন’ ছাড়া বাংলাদেশের নির্বাচন সম্ভব নয় !  চাঞ্চল্যকর সাত খুনের ঘটনার মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ | প্রজন্মকণ্ঠ খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন | প্রজন্মকণ্ঠ অবশেষে আটক সেই হেলমেটধারী | প্রজন্মকণ্ঠ আমেরিকার চাপের কাছে স্বাধীনচেতা দেশ ইরান নতি স্বীকার করবে না

বাংলাদেশে ১৫ প্রজাতির প্রাণী বিলুপ্ত, বাকিদের রক্ষার আহ্বান


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ৯:২৪ এএম:
বাংলাদেশে ১৫ প্রজাতির প্রাণী বিলুপ্ত, বাকিদের রক্ষার আহ্বান

বাংলাদেশের প্রাকৃতিক পরিবেশ অত্যন্ত সমৃদ্ধ হওয়ায় এখানে নানা ধরনের বন্য প্রাণীর বসবাস। কিন্তু আবাসস্থল ধ্বংস হওয়া ও নির্বিচারে হত্যার শিকার হওয়ায় গন্ডার, হায়েনার মতো ১৫ ধরনের প্রাণী বিলুপ্ত হয়ে গেছে। এখনো যারা নানাভাবে টিকে আছে, তাদের জন্য বন্য পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।

দেশের নানা ধরনের বন্য প্রাণীর আলোকচিত্র ও তথ্য নিয়ে তৈরি ‘ফটোগ্রাফিক গাইড টু দ্য ওয়াইল্ডলাইফ অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক বইয়ের প্রকাশনা উৎসবে বক্তারা এসব কথা বলেছেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মনিরুল এইচ খানের লেখা বইটির প্রকাশনা অনুষ্ঠানটি হয় রাজধানীর তেজগাঁওয়ের চ্যানেল আই কার্যালয়ে।

অনুষ্ঠানটিতে বক্তারা উন্নয়নের নামে শুধু কিছু অবকাঠামো করার পথ থেকে সবাইকে সরে আসার আহ্বান জানান। তাঁরা বলেন, বন্য প্রাণীদের আবাসস্থল রক্ষা করতে হবে। বন্য প্রাণী রক্ষা পাওয়া মানে বন, জলাভূমি, নির্মল প্রকৃতি রক্ষা পাওয়া। আর এগুলো রক্ষা পেলে মানুষও সুন্দরভাবে বাঁচতে পারবে। আয়োজকেরা বলেন, অধ্যাপক মনিরুল এইচ খানের ২০ বছরের মাঠপর্যায়ে বন্য প্রাণী পর্যবেক্ষণ, আলোকচিত্র তোলা ও গবেষণার সমাবেশ হচ্ছে এ বই। তবে এই বই পড়ে কেউ যদি বন্য প্রাণী রক্ষায় উদ্যোগী হয়, তাহলে এই বই প্রকাশ সার্থক হবে।

মনিরুল এইচ খান বলেন, একটি বিখ্যাত কথা আছে, ‘বন্যেরা বনে সুন্দর, শিশুরা মাতৃক্রোড়ে’। এই কথাটি মনে রেখেই বন্য প্রাণীদের আবাসস্থল ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

নাট্য ব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ বলেন, ‘এখন উন্নয়ন শব্দটি শুনলে আমার ভয় লাগে। মনে হয়, এর মানে পাহাড় কেটে প্রকৃতি ধ্বংস করে কিছু ইমারত ও অবকাঠামো তৈরি করা। কিন্তু আমরা যদি প্রকৃতি এভাবে ধ্বংস করি, তাহলে নিজের অস্তিত্বই একসময় ধ্বংসের মুখে পড়বে।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু, প্রকৃতি সংরক্ষণবিষয়ক সংস্থাগুলোর আন্তর্জাতিক জোট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনজারভেশন অব নেচারের (আইইউসিএন) কান্ট্রি ডিরেক্টর রাকিবুল আমিন।

বইটিতে ৭৯ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী, ৫১৬ প্রজাতির পাখি, ১০৩ প্রজাতির সরীসৃপ ও ৪৬ প্রজাতির উভচর প্রাণীর ছবি, শনাক্তকারী তথ্য ও বাংলাদেশে এদের বিস্তার সম্পর্কে তথ্য ও মানচিত্র রয়েছে।


 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top