Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১০:৫০ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
বিএনপির নির্বাচনে আসার পিছনে ভিন্ন উদ্দেশ্য রয়েছে : মেনন  ডিসেম্বরের পরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অসম্ভব নির্বাচন বানচাল করার জন্য বিনা উস্কানিতে এই নাশকতা : ওবায়দুল কাদের কী ঘটেছে রাজধানী ঢাকার নয়াপল্টনে ? দেশকে এগিয়ে নিতে বিশ্বাসঘাতকদের প্রয়োজন নেই : শেখ হাসিনা রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশ-বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হেভিওয়েট প্রার্থীরা কে লড়বেন কার বিপক্ষে ভোটের মাঠে  নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে হয়রানি ও গায়েবি মামলার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে : মির্জা ফখরুল সপ্তাহব্যাপী জাতীয় আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিন শেষ হলো সপ্তাহব্যাপী জাতীয় আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিন শেষ হলো

জননিরাপত্তা ও আমাদের সহনশীলতা


ওয়াহিদুজ্জামান

আপডেট সময়: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ১১:৩৪ এএম:
জননিরাপত্তা ও আমাদের সহনশীলতা

রাজনীতির পথের কাটা নেই। প্রতিবন্ধকতা থাকতে পারে। রাজনীতির দূবৃত্তায়ন রয়েছে।ধবংস নাই। আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নের ধারায় বিচরিত। ভাগ্যবান একুশ শতকের বাংলাদেশ।

এক সময়ের তলাবিহীন ঝুড়ির তকমা প্রশমিত হয়েছে। সমূহ অর্জনগুলো রাতারাতি আলাদীনের চেরাগ এসে পৌছে দেয়নি। এর জন্য ত্যাগ শ্রম আর একাগ্রতার সম্মিলন করতে হয়েছে। দিতে হয়েছে তার প্রাতিষ্ঠানিক রুপ।

বর্তমান সরকারের যোগ্য প্রধানমন্ত্রী ও তার সরকারের অব্যাহত প্রচেষ্টার ফসল আজকের স্থিতিশীল বাংলাদেশ।

সম্প্রতি দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলের প্রধান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া দুদকের রুজুকৃত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৫ বছরে সাজা হওয়ায়, তিনি কারা অন্তরীন রয়েছেন। ইতিমধ্যে তিনি একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ডিভিশনও পেয়েছেন।

বিএনপি রাজনৈতিক কর্মসূচীর দুর্বলতা খোজার জন্য ইতিমধ্যে গনমাধ্যমে অনেক বিজ্ঞ প্রসিদ্ধ ব্যাক্তিজনের নানা অভিমত উপস্থাপন করছেন। এটা বাক সাধীনতার সুফলের সুযোগ আমরা ধারন করছি। তবে জনশ্রুতি হয়েছে বিএনপির সুবিবেচনাপ্রসুত সদ্য কর্মসূচি গুলো। তাদের অহিংস আন্দলনের ঘোষিত অবস্থান কর্মসূচী, শান্তপূন্য মানববন্ধন, অনশনের মতো কর্মসূচী গুলোকে সুসংগঠিত মানসিকতার বহি:প্রকাশ প্রশংশনীয়।

যেমন, বিগত সময়ে বিএনপির জালাও পোড়াও কর্মসূচীকে দেশের জনগন অনেকটা অশান্তিকর বিষয় হিসাবে দেখেছেন। আবার অনেকে বাহাবা দিয়ে নিজেদের সার্থ বাস্তবায়ন করেছেন। এতে করে সরকারের একদিক হতে লাভবান হয়েছেন। সেটা হলো, বিএনপির ঐ সময়কার গনবিচ্ছিন্নতা সরকারের জন্য ছিল যোগসূচক। এ অভিমত এদেশের খেটে খাওয়া জনগোষ্ঠীর। এ উপলব্ধ এদেশের অগনিত দেশপ্রেমিকের।

আমাদের দেশের একটা সংস্কৃতি রয়েছে, সমালোচনায় আগ্রাসী হওয়া আর বাহবা মারহাবা মুলক প্রশংসা ব্যাগে করে নিয়ে বগল দাপিয়ে বেড়ানো। তাতে যদি....!

বিএনপির দলীয় প্রধান সাজা পূর্বক জনমনে, একটা অদেখা আতংক বিরাজ করেছিলো। যার প্রমান আমরা সকলে অবগত। তবে সরকারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দৃঢ় ও ধৈর্যশীল ভুমিকা খালেদা জিয়ার সাজার দিনকার ও পরবর্তি সময়ে ছিলো প্রশংসিত।

আগত জাতীয় নির্বাচন ও তার পূব'কার সময় গুলোতে কতটা সহনশীল পরিবেশ অক্ষুন্ন থাকবে। কিংবা আদৌ কোন প্রশ্নবিদ্ধ সময়ের অবতারনা হবে না বলা কঠিন। তবে জাতীয় নীতি নির্ধারক জনেরা যেনো তাল গাছ টা আমার এ জাতীয় প্রবাদের বেড়াজালে না আটকায়। কিংবা জন দুর্ভোগ মুলক পরিবেশের আধারে আমাদের না পড়তে হয় সে বিষয় গুলো উপলব্ধি ও তদুপরি বাস্তবায়ন করার নৈতিক দায়িত্ব হতে তারা যেনো পিছপা না হন।এটাই সাধারন মানুষের প্রত্যাশা।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top