Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১২:০৪ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ভারতের সেনার অস্ত্র ভাণ্ডারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত ৬ আহত অনেক স্কাইপি বন্ধ করে সরকার ঘৃণ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করল : রিজভী টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২ : ইয়াবা ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার নৌকা থেকে যারা ধানের শীষে তারা ‘ভণ্ড’ ও ‘প্রতারক’’ | প্রজন্মকণ্ঠ আস্থার প্রতীক নৌকা আর ধানের শীষ | প্রজন্মকণ্ঠ ভারতের ‘সাহায্য প্রয়োজন’ ছাড়া বাংলাদেশের নির্বাচন সম্ভব নয় !  চাঞ্চল্যকর সাত খুনের ঘটনার মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ | প্রজন্মকণ্ঠ খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন | প্রজন্মকণ্ঠ অবশেষে আটক সেই হেলমেটধারী | প্রজন্মকণ্ঠ আমেরিকার চাপের কাছে স্বাধীনচেতা দেশ ইরান নতি স্বীকার করবে না

বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে শিল্পপতি নুরুল ইসলাম

গুলশান হেলথ ক্লাবের সার্বিক উন্নয়নে সব সময় যমুনা গ্রুপ পাশে থাকবে : নুরুল ইসলাম


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ১৪ এপ্রিল ২০১৮ ২:৪৮ পিএম:
গুলশান হেলথ ক্লাবের সার্বিক উন্নয়নে সব সময় যমুনা গ্রুপ পাশে থাকবে : নুরুল ইসলাম

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশের মধ্যে গুলশান হেলথ ক্লাব হবে সবচেয়ে আধুনিক ক্লাব। এ লক্ষে কাজ চলছে। এটির সার্বিক উন্নয়নে সব সময় যমুনা গ্রুপ পাশে থাকবে।

শনিবার গুলশান হেলথ ক্লাব আয়োজিত বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে ক্লাবটির প্রধান উপদেষ্টা শিল্পপতি নুরুল ইসলাম এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, আমি আপনাদের কথা দিয়েছিলাম সুন্দর একটি ক্লাব উপহার দেব। এই ক্লাবের উন্নয়নের জন্য মেয়র আনিসুল হক ১৮ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। তিনি আজ বেঁচে নেই। আল্লাহ তাকে জান্নাতবাসী করুন। আমি কথা দিচ্ছি, আমি সব সময় আপনাদের পাশে থাকব। যতদিন বাঁচি, আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই।

গুলশান হেলথ ক্লাবের এ প্রধান উপদেষ্টা বলেন, ক্লাবের জন্য যে টাকা বরাদ্দ রয়েছে, তা দিয়ে উন্নয়ন কাজ চলছে। তবে আরও যদি সহযোগিতার প্রয়োজন হয়, তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে কথা দিচ্ছি, ক্লাবের উন্নয়নের যমুনা গ্রুপ সহযোগিতা করবে।

সকাল সাড়ে ৭টায় গুলশান হেলথ ক্লাবে বেলুন উড়িয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ সালের বরণের অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম।

পরে গুলশান হেলথ ক্লাবের সভাপতি এম এ কাদের খানের সভাপতিত্বে শুরু হয় আলোচনা সভা। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রফিকুল ইসলাম নোমান, এমএ ওয়াহিদ, এটিএম এনায়েত উল্লাহ, সাবেক মন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, খতিব আবদুল জাহিদ মুকুল, এম এন এইচ বুলু, হারুন-উর-রশিদ।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে নববর্ষে সবার কল্যাণ ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান শিল্পপতি নুরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ৩৬৫ দিনই আল্লাহর রহমত বর্ষিত হয়। সব দিনের গুরুত্ব সমান, তবে বিশেষ কিছু দিন তো থেকেই যায়। সবার প্রতিটি মুহূর্ত হোক সুন্দর, সবার জন্য সুস্থতা কামনা করছি।

পহেলা বৈশাখের ইতিহাস তুলে ধরে বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বলেন, আমরা জানি সম্রাট আকবরের সময় থেকে খাজনা আদায়ের মধ্য দিয়ে পহেলা বৈশাখ শুরু হয়েছিল। এটি বাঙালির প্রাণের উৎসব।

সবাইকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা একে অপরকে ভালোবাসবো, সুখে-দুঃখে একসঙ্গে থাকব। সবার সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করে বক্তৃতা শেষ করেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান।

আলোচনা সভা শেষে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার অংশ হিসেবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। এতে সংগীত পরিবেশন করবেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মনির খান, রিজিয়া পারভীন, দিনাত জাহান মুন্নী, ঝিলিক বাবু, সাইদা তান্নিসহ দেশবরেণ্য শিল্পীরা

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশের মধ্যে গুলশান হেলথ ক্লাব হবে সবচেয়ে আধুনিক ক্লাব। এ লক্ষে কাজ চলছে। এটির সার্বিক উন্নয়নে সব সময় যমুনা গ্রুপ পাশে থাকবে।

শনিবার গুলশান হেলথ ক্লাব আয়োজিত বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে ক্লাবটির প্রধান উপদেষ্টা শিল্পপতি নুরুল ইসলাম এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, আমি আপনাদের কথা দিয়েছিলাম সুন্দর একটি ক্লাব উপহার দেব। এই ক্লাবের উন্নয়নের জন্য মেয়র আনিসুল হক ১৮ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। তিনি আজ বেঁচে নেই। আল্লাহ তাকে জান্নাতবাসী করুন। আমি কথা দিচ্ছি, আমি সব সময় আপনাদের পাশে থাকব। যতদিন বাঁচি, আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই।

গুলশান হেলথ ক্লাবের এ প্রধান উপদেষ্টা বলেন, ক্লাবের জন্য যে টাকা বরাদ্দ রয়েছে, তা দিয়ে উন্নয়ন কাজ চলছে। তবে আরও যদি সহযোগিতার প্রয়োজন হয়, তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে কথা দিচ্ছি, ক্লাবের উন্নয়নের যমুনা গ্রুপ সহযোগিতা করবে।

সকাল সাড়ে ৭টায় গুলশান হেলথ ক্লাবে বেলুন উড়িয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ সালের বরণের অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম।

পরে গুলশান হেলথ ক্লাবের সভাপতি এম এ কাদের খানের সভাপতিত্বে শুরু হয় আলোচনা সভা। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রফিকুল ইসলাম নোমান, এমএ ওয়াহিদ, এটিএম এনায়েত উল্লাহ, সাবেক মন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, খতিব আবদুল জাহিদ মুকুল, এম এন এইচ বুলু, হারুন-উর-রশিদ।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে নববর্ষে সবার কল্যাণ ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান শিল্পপতি নুরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ৩৬৫ দিনই আল্লাহর রহমত বর্ষিত হয়। সব দিনের গুরুত্ব সমান, তবে বিশেষ কিছু দিন তো থেকেই যায়। সবার প্রতিটি মুহূর্ত হোক সুন্দর, সবার জন্য সুস্থতা কামনা করছি।

পহেলা বৈশাখের ইতিহাস তুলে ধরে বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বলেন, আমরা জানি সম্রাট আকবরের সময় থেকে খাজনা আদায়ের মধ্য দিয়ে পহেলা বৈশাখ শুরু হয়েছিল। এটি বাঙালির প্রাণের উৎসব।

সবাইকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা একে অপরকে ভালোবাসবো, সুখে-দুঃখে একসঙ্গে থাকব। সবার সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করে বক্তৃতা শেষ করেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান।

আলোচনা সভা শেষে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার অংশ হিসেবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। এতে সংগীত পরিবেশন করবেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মনির খান, রিজিয়া পারভীন, দিনাত জাহান মুন্নী, ঝিলিক বাবু, সাইদা তান্নিসহ দেশবরেণ্য শিল্পীরা। - যুগান্তর


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top