Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ , সময়- ৯:০৬ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ড. কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় মামলা সারা দেশে ব্যাপক শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় বিজয় দিবস উদযাপন বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টকে ভোট না দেয়ার আহ্বান খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে সংগ্রাম চলছে, চলবে : ফখরুল  ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন প্রধানমন্ত্রী বিজয় দিবসে একাত্তরের বীর শহীদদের প্রতি প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা গণমানুষের শেখ মুজিব, ইতিহাসের মহানায়ক বিজয় দিবসের বীর শ্রেষ্ঠরা বীরত্বের এক অবিস্মরণীয় দিন, মহান বিজয় দিবস আজ নির্বাচনে নিরাপত্তার ছক চুড়ান্ত করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী

ভারত থেকে আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসছে, চলতি মাসেই 


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ২ জুন ২০১৮ ১১:১১ এএম:
ভারত থেকে আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসছে, চলতি মাসেই 

দেশের চাহিদা মিটাতে ভারত থেকে আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসছে। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি জুন মাসের মধ্যেই জাতীয় গ্রিডে এই বিদ্যুৎ যোগ হবে। 

সাবস্টেশনের ক্ষমতা বাড়ানোর পর নতুন করে এই বিদ্যুৎ আসবে বাংলাদেশে। এতে ভারত থেকে বিদ্যুৎ আমদানির পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে এক হাজার ১৬০ মেগাওয়াট। বিদ্যুৎ বিভাগ এই বিদ্যুৎ আমদানির জন্য এরইমধ্যে ভারতের কোম্পানি এনটিপিসি বিদ্যুৎ ভ্যাপার নিগাম লিমিটেড (এনভিভিএন) এবং পাওয়ার ট্রেডিং কর্পোরেশন (পিটিসি) ইন্ডিয়া লিমিটেডকে সরবরাহের অনুমোদন দিয়েছে। 

বর্তমানে স্বল্পমেয়াদে ৩০০ ও ২০০ মেগাওয়াট করে ভারতের এই দুই কোম্পানির কাছ থেকে বিদ্যুৎ কেনা হচ্ছে।পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি) সূত্রে জানা গেছে, ভেড়ামারা-বহরামপুর এইচভিডিসি সাবস্টেশনের দ্বিতীয় ইউনিটের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। এটি যে কোনো দিন উদ্বোধন করা হতে পারে। আগামী ১০ জুন থেকে এই বিদ্যুৎ আমদানি শুরু হতে পারে বলেও সূত্রটি জানিয়েছে।এ বিষয়ে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালিদ মাহমুদ বলেন, আমরা আশা করছি ১০ জুন ভারত থেকে নতুন বিদ্যুৎ আমদানি শুরু হবে। আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। গত ১১ এপ্রিল সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি দরপ্রস্তাব অনুমোদনও দিয়েছে।

পিডিবি সূত্র জানায়, সরকার স্বল্প এবং দীর্ঘ দুই মেয়াদে ভারত থেকে বিদ্যুৎ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ২০১৮ সালের ১ জুন থেকে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্বল্পমেয়াদে এবং ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০৩৩ সালের ৩১ মে পর্যন্ত মেয়াদকে দীর্ঘমেয়াদ হিসেবে নির্ধারণ করা হয়েছে।পিডিবি সূত্র জানায়, এনভিভিএন (ইন্ডিয়া) থেকে স্বল্পমেয়াদে প্রতি ইউনিট ৪ টাকা ৭১ পয়সা দামে প্রতিদিন ৩০০ মেগাওয়াট এবং পিটিসি ইন্ডিয়া থেকে প্রতি ইউনিট ৪ টাকা ৮৬ পয়সা দামে প্রতিদিন ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হবে। তবে দীর্ঘমেয়াদে এনভিভিএন প্রতি ইউনিট ৬ টাকা ৪৮ পয়সা মূল্যে ৩০০ মেগাওয়াট এবং পিটিসি থেকে প্রতি ইউনিট ৬ টাকা ৫৪ পয়সা মূল্যে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হবে। 

শিগগির এজন্য বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি (পাওয়ার পারচেজ এগ্রিমেন্ট, পিপিএ) সই করা হবে। এই চুক্তি ১৫ বছরমেয়াদি হতে পারে। বিদ্যুতের মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী, প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে ২০৪০ সালের মধ্যে ভারত, নেপাল, ভুটান ও মিয়ানমার থেকে কমপক্ষে ৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা করা হয়েছে। ভারত থেকে এখন ভেড়ামারা দিয়ে ৫০০ মেগাওয়াট এবং কুমিল্লা দিয়ে ১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করে বাংলাদেশ।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top