Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ৪:৫০ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হলেন ফেরদৌস ও শাহ ফরহাদ নেতাজি'কে কেন রাষ্ট্রনায়কের মর্যাদা দেওয়া হল না, ক্ষুব্ধ মমতা সাংবাদিকদের একটা করে ফ্ল্যাট দেবে সরকার আ'লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর জনগণ শান্তিতে : কাদের ফেব্রুয়ারি মাসে বিশ্ব ইজতেমা করার সিদ্ধান্ত ডাকসু নির্বাচন, আগামী ১১ মার্চ বিশ্ব চিন্তাবিদের তালিকায় এবার শেখ হাসিনা  যুবলীগ ও আ'লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ১০ গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একসঙ্গে চলবে : প্রধানমন্ত্রী দুদকের পরিচালক সাময়িক বরখাস্ত

দুর্নীতি সুশাসনের অন্তরায়, তবুও খালেদা জিয়ার মুক্তির আহ্বান ‘আসল বিএনপি’র  


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৩ জুন ২০১৮ ২:৫৬ পিএম:
দুর্নীতি সুশাসনের অন্তরায়, তবুও খালেদা জিয়ার মুক্তির আহ্বান ‘আসল বিএনপি’র  

‘আসল বিএনপি’ হিসেবে গণমাধ্যমের কাছে পরিচিত কামরুল হাসান নাসিম দীর্ঘ বিরতি শেষে আবারও রাজনৈতিক ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আহ্বান জানিয়েছেন এবং তার মুক্তির পর নয়া পল্টনে প্রধান কার্যালয়ের সামনে জনতার উচ্চ আদালত বসানোর কথা বলেছেন। নাসিম নিজেকে বিএনপি পুনর্গঠনের উদ্যোক্তা দাবি করলেও দলটির দায়িত্বশীল নেতারা প্রকাশ্যে কখনও তাকে স্বীকার করেনি।

শনিবার দুপুরে গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীকে আমন্ত্রণ জানান তিনি। সেখানে লিখিত বক্তব্যে কামরুল হাসান নাসিম বলেন, ‘আমি ঘোষণা করছি, বেগম খালেদা জিয়া যেদিন মুক্ত হবেন তাঁর ৭২ ঘণ্টার মধ্যে জাতীয়তাবাদী জনতার উচ্চ আদালত দলের নয়া পল্টন কার্যালয়ের সামনে বসবে। আর তিনি সহসায় মুক্ত না হলে মাইকে আওয়াজ পান- এই কথা মাথায় রেখে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিনষ্ট হয় এমন কিছুতে না থেকে ঢাকার পূর্বেকার কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনেই বসে যাবে উচ্চ আদালত।’

তিনি বলেন, ‘দলের পক্ষ থেকে আমি বর্তমান সরকারকে বলব, আপনারা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য চিন্তা করুন। কারণ ফাঁকা মাঠে গোল দেয়ার আমাদের কোনো উদ্দেশ্য নেই। অতীতে তিনি (বেগম জিয়া) দেশের বাইরে যখন যেতেন আমরা দলের পুনর্গঠন ইস্যুতে কোনো কর্মসূচি রাখি নাই। এখনও তাকে কারাগারে রেখে পুনর্গঠন করার বা উচ্চ আদালত বসানোর যৌক্তিকতা নেই। হ্যাঁ, তিনি বা তার পরিবারকে শীর্ষ নেতৃত্ব থেকে সরে আসতে হবে এটা ঠিক- তবে তাঁদেরকে রেখেই দল সাজাতে হবে। তাঁদেরও দলের জন্য অবদান আছে।’

নাসিম বলেন, ‘একটা কথা বলার দরকার। দুর্নীতি সুশাসনের অন্তরায়। সেই দুর্নীতি দেশ পরিচালনা করার সময়ে বেগম জিয়া করেননি তা বলার সুযোগ নেই। কিন্তু বিচারটা ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ করতে গেলে সাধারণ মানুষ মনে করে, ইহা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। কাজেই তৃতীয় কোনো রাজনৈতিক দলের শাসনামলে এই বিচার হলে গ্রহণযোগ্যতা পেত বা পায়। সেই তৃতীয় দলটা তো দেশে নেই- যারা রাষ্ট্রীয় সেবায় আসবে! আমরা আবার তৃতীয় অগণতান্ত্রিক শক্তিকেও তো প্রত্যাশা করতে পারি না। সারা পৃথিবীতে 'বড়' দের বিচার নেই বা হয় না। তেমন কিছুর সংস্কৃতিতে থেকে একজন অযোগ্য নেত্রী ও দুষ্টু মা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে দিতে সাহায্য করুন। তাঁকে আমাদের দরকার। তার মুখ থেকে জীবনের এই শেষ সময়ে কিছু নীতি কথা ও সত্য কথা উঠে আসার জন্য হলেও মুক্ত করুন তাঁকে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপিতে জিয়াকে সামনে রেখে রাজনীতি করতে হবে। তবে নেতৃত্ব নির্ধারিত রাখার সুযোগ নেই। ত্রিশ বছরের অধিক সময় নিয়ে বেগম জিয়াই তো দলের ঐক্যের প্রতীক ছিলেন। তাকে রেখেই পুনর্গঠন করতে হবে। তবে রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে দেয়া যাবে না। তার পুত্র কিংবা পারিবারিক দিকটাকে বড় করে দেখার সুযোগ থাকলেও তাদের কোয়ালিটিটাও তো থাকতে হবে! আমাদের প্রতিপক্ষ দলের প্রধান আওয়ামী লীগ নেত্রী তথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তো প্রায়শই বলছেন, তার দলে নতুন নেতৃত্বের কথা। আমাদের বলয়ে সেটা নেই কেন?’

নাসিম বলেন, ‘সজ্জন চরিত্রের দুই একজন মির্জা ফখরুলেরা তো আছেন। তাদেরকে সামনে রেখে বিএনপি পুনর্গঠন করার উদ্যোগে সকলকেই সামিল হতে হবে। গণতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচনের মাধ্যমে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব নির্বাচিত করে তৃনমূল পর্যায়ে ঢেলে সাজাতে হবে দলকে। এরপর আমরা লড়বো এবং দেশের মানুষকে বলব, তোমরা আমাদের নির্বাচিত কর। একটা পজিটিভ বিএনপি- যে বিএনপির কাছে আজকের আওয়ামী লীগ ক্ষমতা ছাড়তে দ্বিধায় বসবাস করবে না। সেই বিএনপি মুক্তিযুদ্ধকে ধারণ করে শহীদ জিয়াকে নিয়ে গর্ব করবে, বঙ্গবন্ধুকে জাতির পিতা বলবে। সে বিএনপি জামায়াতকে নিয়ে রাজনীতি করবে না। সেই বিএনপির জন্য একজন শেখ হাসিনাও উদার হবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।’

তিনি বলেন, ‘আমি তো মনে করি যতক্ষণ পর্যন্ত জামায়াত ছাড়ার ব্যাপারটা নিশ্চিত না হচ্ছে সরকারকে আরও কঠোর হয়ে জামায়াতপন্থী বিএনপি নেতাকর্মীদের নির্মূলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। শেষ করে দিতে হবে যারা বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদকে মুখে মুখে ধারণ করে দাঁত কেলাতে থাকে ওই রাজনৈতিক অপশক্তির সাথে।’ নাসিম আরও বলেন, ‘বেগম জিয়া শুনতে পাবেন কি না জানি না- তাকেই সিদ্ধান্ত দিতে হবে। আগে তো আমার কথা শুনত! কাউন্সিলে গিয়ে বলেছিলেন, আমি নকল আর উনি আসল।’


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top