Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৬:০৬ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের সংঘর্ষ : গুলিতে এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত জরিপে শেখ হাসিনা জনপ্রিয়তার তুঙ্গে, বিজয় আওয়ামী লীগেরই হবে : ওবায়দুল কাদের অনলাইনেও মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে, জেনে নিন কিভাবে  বিএনপির সাথে জামায়াতের সংশ্লিষ্টতা নিয়ে এখন নিরব জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট !  রাজশাহীর হরিপুরে যাত্রীবাহী বাস উল্টে নিহত ১, আহত অন্তত ১০ জন পুলিশের ওপর আক্রমণ ছিল পূর্ব পরিকল্পিত : ডিএমপি কমিশনার নির্ধারিত সময়েই পৌঁছাবে বিনামূল্যের বই | প্রজন্মকণ্ঠ রোহিঙ্গাদের জোর করে মিয়ানমারে ফেরত পাঠাবে না বাংলাদেশ | প্রজন্মকণ্ঠ কীভাবে চেনা যাবে FAKE NEWS,  ঠেকানোর উপায় কী  কুড়িগ্রামে লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে তাবলীগের জেলা ইজতেমা চলছে 

উত্তাল বগুড়ায় আন্দোলকারীদের সাথে সেলফি তোলায় ব্যস্ত ছিলো পুলিশ 


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৪ আগস্ট ২০১৮ ৫:২০ পিএম:
উত্তাল বগুড়ায় আন্দোলকারীদের সাথে সেলফি তোলায় ব্যস্ত ছিলো পুলিশ 

ঢাকায় বাস চাপায় স্কুল শিক্ষার্থী নিহতের প্রতিবাদে আজও উত্তাল বগুড়া। শনিবার সকাল সাড়ে দশটা থেকে শুরু করে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত শহরের জিরো পয়েন্ট সাতমাথা অবরোধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা। 

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ শ্লোগানে নিমিষেই উত্তাল হয়ে ওঠে বগুড়া। আজকের আন্দোলনে পুলিশ সতর্ক থাকলে কোন প্রকার বাধা দেয়নি। পুলিশ আন্দোলকারীদের সাথে সেলফি তোলায় ব্যস্ত ছিলো। এই আন্দোলনের প্রভাব ছিলো মহাসড়কেও।বগুড়া থেকে ঢাকাগামী কোন বাস চলাচল করেনি। বন্ধ ছিলো আন্তজেলা পরিবহনও।
  
বিক্ষোভকারীদের হাতে হাতে প্রতিবাদের বিভিন্ন শ্লোগান লেখা ফেস্টুন প্লেকার্ড ছিলো। শহরের সাতমাথায় অবস্থানের পর শহরের বনানী এলাকায় গিয়েও আন্দোলন করে উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা। সেখানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আন্দোলনকারীদের উপর চড়াও হয়। কয়েকজন ছাত্রকে তারা চরথাপ্পরও মারা ঘটনা ঘটেছে। 

করতোয়া মাল্টিমিডিয়া স্কুল এ্যান্ড কলেজ, বগুড়া জেলা স্কুল, সরকারি আজিজুল হক কলেজ, সরকারি শাহ সুলতান কলেজ পৌর উচ্চবিদ্যালয়, ক্যানপাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজসহ বগুড়ার প্রায় স্কুলের খুদে শিক্ষার্থীরা এই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে। তাদের এই বিক্ষোভে অনেক অভিভাব একাত্ত্বতা প্রকাশ করে তাদের বিক্ষোভে যোগ দিয়েছে।

আজকের আন্দোলনে শহরের রাস্তায় বের হওয়া যানবাহনের গাড়ীর কাগজপত্র পরীক্ষা করে। তারা স্কুলবাস থেকে শুরু করে পুলিশের গাড়ীর কাগজপত্রও দেখেছে। পরে দুপুর দেড়টার দিকে আন্দোলনকারীরা সাতমাথা ত্যাগ করে চলে যায়। 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top