Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১১:১৯ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
আয়কর মেলার শেষ দিন আজ দুর্নীতিসহ ১১ সূচকে রেড জোনে বাংলাদেশ : এমসিসি  চিকিৎসা বিষয়ে খালেদা জিয়ার রিটের আদেশ আজ  নাজমুল হুদাকে ৪৫ দিনের মধ্যে আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ  নির্বাচনকালীন সম্ভাব্য নাশকতা মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার  একজন শিশুকে পিইসি পরীক্ষার জন্য যেভাবে পরিশ্রম করতে হয়, সত্যিই অমানবিক : সমাজকল্যাণমন্ত্রী নির্বাচনকে সামনে রেখে আদর্শগত নয়, কৌশলগত জোট করছে আওয়ামী লীগ : সাধারণ সম্পাদক থার্টিফার্স্ট উদযাপন নিষিদ্ধ : স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের স্বার্থে পেশাদারিত্ব বজায় রাখবে সেনাবাহিনী  মহাজোটের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে যাওয়ার শিগগিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে 

বাসা ভাড়া নেওয়ার পূর্বে আপনার কি করণীয় ?


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৮ আগস্ট ২০১৮ ৯:৪২ এএম:
বাসা ভাড়া নেওয়ার পূর্বে আপনার কি করণীয় ?

নগরায়ন ও বিশ্বায়নের এ যুগে মানুষ শহর মুখী। জীবিকার তাগিদে আমরা নিজেদের বসতবাড়ি ছেড়ে বসবাস করি ভাড়াটিয়া বাসায়। রাজধানীসহ বেশিরভাগ জেলা শহরগুলোতে মানুষ ভাড়াবাড়িতে থাকছেন। কিন্তু এক্ষেত্রে পোহাতে হচ্ছে নানা ঝামেলা। বাসাটি কেমন হবে, সন্তানরা স্বাস্থ্যসম্মতভাবে চলাফেরা করতে পারবে কি না, পরিবারের নিরাপত্তা কেমন হবে? এসব নানান প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় বাসা ভাড়া নেয়ার পূর্বে। তাই বাসা ভাড়া নেয়ার পূর্বে ভাড়াটিয়া হিসেবে আপনার কি করণীয় তা জানাচ্ছে ডিএমপি নিউজ।

একনজরে বাসার ভেতর বাহির দেখুন :  বাসা ভাড়া নেয়ার পূর্বে অবশ্যই আপনি যে বাসা বা অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া নিতে চান তা দেখে নেবেন।  বাসার দেয়াল খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় প্রথম দেখাতেই চোখ দিতে হবে দেয়ালে। দেখুন, দেয়ালে ছোপ ছোপ ভেজা দাগ রয়েছে কি না। এটা শুধু সৌন্দর্যহানির ব্যাপার নয়, এতে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিও রয়েছে। এমন ভেজা চারদেয়ালের মাঝে শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা হয়।

কতটি বৈদ্যুতিক আউটলেট রয়েছে: আমাদের আধুনিক জীবন ব্যবস্থায় প্রয়োজন প্রযুক্তিগত পণ্যের ব্যবহার। টেলিভিশন, ফ্রিজ বা অন্যান্য কাজে বাসায় বৈদ্যুতিক সংযোগের দরকার। দেখে নিন, ওই বাসায় মোট কয়টি বৈদ্যুতিক সকেট বসানো রয়েছে। যদি লম্বা তার টেনে বৈদ্যুতিক সংযোগ নিতে হয়, তাহলে বিপদ। দুর্ঘটনা এড়ানো কঠিন হবে।

গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা :  গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গাটার আকার কেমন হবে। আপনার যদি গাড়ি বা মোটরসাইকেল থাকে তাহলে ওই বাড়িতেই পার্কিং করা যাবে কি না,  তাতে নিরাপত্তা ও পর্যাপ্ত স্থানের ব্যবস্থা রয়েছে কি না দেখে নিন। খোলা স্থান হলে প্রহরী ও  সিসি ক্যামেরার দিকে নজর দিন।

জানালা দিয়ে পরিবেশটা দেখুন : ঘরে আলো বাতাস আসার জন্য জানালার কোন বিকল্প নেই। বাসা ভাড়া নেয়ার সময় অবশ্যই জানাল দিয়ে এর আশপাশ দেখুন।  বাসার প্রতিটি জানালা দিয়ে আশপাশে তাকিয়ে দেখুন, কী কী রয়েছে? জানালায় চোখ রাখলেই যদি পাশের ভবনে রেস্টুরেন্ট বা রাস্তার নিয়ন আলো কিংবা আবর্জনার স্তূপের দেখা মেলে, তাহলে বাসাটি না নেওয়াই ভালো।

মালিকপক্ষের সাথে সরাসরি কথা বলুন : বাসা ভাড়া নেয়ার সময় অবশ্যই মালিক পক্ষের সাথে সরাসরি কথা বলে নেয়া ভালো । সরাসরি কথা বললে তার সম্পর্কে আপনার ধারণা পরিস্কার হবে। অনেক বাড়ির মালিক অন্য কোথাও থাকেন। যদি তিনি ওই বাড়িতেই থাকেন, তবে সুবিধা। আর না থাকলে জানতে হবে, তিনি কত দিন পরপর ভাড়াটিয়াদের অবস্থা দেখতে আসেন? তাঁদের সমস্যা-অভিযোগের দেখভাল করা মালিকের অন্যতম দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।

ঘরের পাশের দরজায় কে থাকেন : প্রতিবেশীর সাথে সুসম্পর্কের মাধ্যমে নিরাপদ ও সুন্দর পরিবেশে বসবাস করা যায়। বাসা ভাড়া নেয়ার সময় দেখে দিন আপনার বাসার চারপাশে যাঁরা রয়েছেন তাঁরা কে, কেমন ও কি করে। এসব বিষয় সম্পর্কে জেনে নেয়া ভালো। যেকোনো সময় কাজে লাগবে।

বাড়িটি বিক্রির জন্য কি না : বিড়ম্বনা এড়ানোর জন্য বাসা ভাড়া নেয়ার পূর্বে জেনে নিন যে বাড়ি বা অ্যাপার্টমেন্টে উঠছেন তা বিক্রির চেষ্টা চলছে কি না। যদি তাই হয়, তাহলে বিক্রি হওয়া মাত্রই আপনাকে দ্রুত বাসা ছেড়ে দেওয়ার তাগাদা দেবেন মালিক।

পানি ও গ্যাস:  আমাদের জীবনযাপনে সবচেয়ে গুরুত্বপর্ণ চাহিদার মধ্যে রয়েছে পানি ও গ্যাস। বাড়িতে সব সময় পানি থাকে কি না এবং বাসার সব সংযোগ থেকে পানি আসে কি না পরখ করে নিন। নির্দিষ্ট সময় পানি সরবরাহ বন্ধ থাকলে জেনে নিতে হবে। ওই বাড়ির পানির মূল উৎস কী, গ্যাসের কী অবস্থা, তা জেনে নিতে হবে।

বাসা মেরামতের বিষয় : বাসায় ওঠার আগে বেসিনের কল নষ্ট বা দেয়ালের পলেস্তার কেমন আছে দেখে নিন। নষ্ট থাকলে বাড়িওয়ালাকে দিয়ে এগুলো মেরামত করিয়ে নিন। যদিও এসব ঠিকঠাক করে দেওয়া বাড়িওয়ালার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। তবুও কথা বলে নিশ্চিত করে নিন।

ভাড়া নিয়ে চুক্তিপত্র: অনেক সময় বাড়িওয়াল কিছু না বলে যখন-তখন বাড়ির ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়ার কথা বলেন। কয়েক মাস পেরুতে না পেরুতেই ভাড়ায় যোগ হয় বাড়তি টাকা। এই বিড়ম্বনা থেকে মুক্ত থাকতে করে নিন ভাড়া নেয়ার চুক্তিপত্র। চুক্তিতে বাড়ি ভাড়ার পরিমান, অন্যান্য ইউটিলিটি সুবিধার বিবরণসহ যাবতীয় বিষয় লিপিবদ্ধ আছে কি না দেখে নিন।

বাড়িওয়ালা সম্পর্কে জানুন: ভাড়াটিয়া সম্পর্কে বাড়িওয়ালার যেমন জানার প্রয়োজন রয়েছে ঠিক তেমনি বাড়িওয়ালা সম্পর্কে ভাড়াটিয়ার জানার প্রয়োজন রয়েছে। বাড়িওয়ালার চারিত্রিক গুনাবলী, আপনার আগের ভাড়াটিয়া কেন চলে গিয়েছিল? সে সব জানার চেষ্টা করুন।

তথ্য ফরমে নাম নিবন্ধন: বর্তমান প্রতিটি বাড়িওয়ালা তার নিজের ও ভাড়াটিয়ার তথ্য নির্ধারিত ফরমে পূরণ করে সংশ্লিষ্ট থানায় জমা দিতে বাধ্য। বাড়ি ভাড়া নেয়ার পর বিলম্ব না করে বাড়িওয়ালার সাথে সাথে ভাড়াটিয়া হিসেবে আপনি নিজে আন্তরিক হয়ে নিরাপত্তার স্বার্থে তথ্য ফরম পূরণ করুন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top