Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ২৩ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ৬:৩৯ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
যুবলীগ ও আ'লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ১০ গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একসঙ্গে চলবে : প্রধানমন্ত্রী দুদকের পরিচালক সাময়িক বরখাস্ত ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন ২৮ ফেব্রুয়ারি ১০টি অঞ্চলে পাঁচ ধাপে অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন আওয়ামী লীগ দেশ চালাতে পারবে না : রব ৫ কোম্পানির পানি মানহীন : বিএসটিআই পরিকাঠামো উন্নয়নে বিপুল অর্থ ঋণ দিচ্ছে চিন বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছেন এরশাদ  মুন্সিগঞ্জের ট্রলারডুবি যে সত্যগুলো উন্মোচন করল

সমকামিতার দায়ে মালয়েশিয়ায় দুই নারীকে বেত্রাঘাত করেছে শরিয়া আদালত । প্রজন্মকণ্ঠ


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ৮:০৪ পিএম:
সমকামিতার দায়ে মালয়েশিয়ায় দুই নারীকে বেত্রাঘাত করেছে শরিয়া আদালত । প্রজন্মকণ্ঠ

লেসবিয়ান সেক্স করার অভিযোগে মালয়েশিয়ার এক শরিয়া আদালত দুই নারীকে বেত্রাঘাত করেছে৷ মানবাধিকার সংস্থাগুলো এই সাজার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷

ইসলামিক শরিয়া আইন অনুযায়ী, ১৫০ প্রত্যক্ষদর্শীর উপস্থিতিতে সোমবার তাঁদেরকে ছয়টি করে বেতের আঘাত করা হয়৷ এ সময় তাঁরা বোরকা পরে ছিলেন৷ মালয়েশিয়ার উত্তর-পূর্বের প্রদেশ তেরেঙ্গানুতে ৩২ বছর এবং ২২ বছর বয়সি দুই নারীর সাজা কার্যকর করা হয়৷ এই সাজার পাশাপাশি দুই নারীকে আর্থিক জরিমানাও করা হয়৷

মালয়েশিয়ায় রাষ্ট্রীয় আইনের পাশাপাশি দ্বৈত আইনি ব্যবস্থা হিসেবে শরিয়া আইনও চলে৷ ফলে, দেশটির সিভিল আইনে বেত্রাঘাতের শাস্তি নিষিদ্ধ হলেও শরিয়া আইন তা অনুমোদন করে৷ ৬০ শতাংশ মুসলিম অধ্যুষিত দেশটিতে সাম্প্রতিক সময়ে ইসলামিক রক্ষণশীলতা বেড়েই চলেছে৷ দিন দিন বাড়ছে সমকামী গোষ্ঠীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা৷

মানবাধিকার সংস্থাগুলো এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ তাঁরা বলছে, প্রথমত, বেত্রাঘাত কোনো শাস্তি হতে পারে না৷ দ্বিতীয়ত, কারো যৌন আকাঙ্খা অপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে না৷

মালয়েশিয়ার অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এক বিবৃতিতে বলছে, এই ঘটনা মালয়েশিয়ার জন্য একটি ‘আতঙ্কের দিন' হয়ে থাকবে৷ পাশাপাশি এ ধরনের শারীরিক শাস্তিকে ‘নিষ্ঠুর, অমানবিক এবং অবমাননাকর' বলেও বর্ণনা করেছে সংস্থাটি৷

ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে অবস্থিত আচেহ প্রদেশে এখনো শরিয়া আইন চালু আছে৷ ঐ অঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন থামানোর লক্ষ্যে সরকার ২০০১ সালে ঐ প্রদেশের জন্য ‘বিশেষ স্বায়ত্তশাসন’এর ব্যবস্থা করার পরই ইসলামি শরিয়া আইন বাস্তবায়ন শুরু হয়৷ এরপর ২০০৫ সালে শান্তিচুক্তি সই হওয়ার পর আইনের প্রয়োগ আরও জোরালো হয়৷

সংস্থার গবেষক ব়্যাচেল ছোয়া-হোওয়ার্ড বলেন, ‘‘পারস্পরিক সম্মতিতে সমকামী সম্পর্ক গড়ে তোলায় দুই জন মানুষকে যে বর্বরোচিত শাস্তি দেয়া হলো, তাতে মানবাধিকারের উন্নয়ন ঘটাতে সরকারের চেষ্টা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷''

জাস্টিস ফর সিস্টার্স নামের একটি নারী অধিকার সংগঠনের মুখপাত্র থিলাগা সুলাথিরেহ এই ঘটনাকে ‘মালয়েশিয়ার মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতি' বলে বর্ণনা করেছেন৷ র ডেপুটি প্রেসিডেন্ট আবদুল রহিম সিনোয়ান অবশ্য এই শাস্তিকে কঠোর বা যন্ত্রণাদায়ক বলে মানতে রাজি নন৷ তিনি বলছেন, এমন শাস্তির উদ্দেশ্য নারীদের ‘একটু শিক্ষা দেয়া এবং অনুশোচনা করতে সাহায্য করা'৷

মালয়েশিয়ায় সমকামী ও তৃতীয় লিঙ্গের প্রতি অসহিষ্ণুতা দিন দিন বেড়েই চলেছে৷ দক্ষিণের এক প্রদেশে গত মাসে কিছু লোক মিলে তৃতীয় লিঙ্গের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন৷ কয়েক সপ্তাহ আগে একটি প্রদর্শনী থেকে দুই সমকামী অ্যাক্টিভিস্টের ছবি সরিয়ে ফেলা হয়৷ পরে দেশটির ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী মুজাহিদ ইউসুফ রাওয়া সাংবাদিকদের বলেন, সরকার সমকামের প্রচার সমর্থন করে না৷


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top