Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ১২ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১১:৪৪ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
রাখাইনে এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি হয়নি : রিচার্ড অলব্রাইট নির্বাচনী আচরণবিধি মানছেন না সম্ভাব্য প্রার্থীরা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারই 'নির্বাচনকালীন সরকার'   মঙ্গলবার পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা নিবে আওয়ামী লীগ  আন্তর্জাতিক পুরস্কারে মনোনীত শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী প্রথম দিনে ১৩২৬টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে বিএনপি  পাঁচ বিভাগের ৭টি আসনে একক প্রার্থী পাচ্ছে আওয়ামী লীগ সিইসিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী ২৩ নয়, এখন ৩০  ৩০০ সংসদীয় আসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের নির্দেশনা দিয়েছেন ইসি 

সমকামিতা ভারতবর্ষে আর কোনও অপরাধ নয় : ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা | প্রজন্মকণ্ঠ


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ৬:৩২ পিএম:
সমকামিতা ভারতবর্ষে আর কোনও অপরাধ নয় : ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা | প্রজন্মকণ্ঠ

সমকামিতা ভারতবর্ষে আর কোনও অপরাধ নয়। ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা করে স্পষ্ট জানাল সুপ্রিম কোর্টের ৫ বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বে বিচারপতি রোহিংটন নরিম্যান, এএম খানউইলকর, ডিওয়াই চন্দ্রচূড় ও ইন্দু মালহোত্রার বেঞ্চের এদিনের রায়ে বাতিল হয়ে গেল ভারতীয় সংবিধানের ব্রিটিশ আমলের  ৩৭৭ ধারা।

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী প্রকৃতি বিরুদ্ধ যেকোনও ধরনের যৌনতাকেই অপরাধ বলে গণ্য করা হয়েছিল। যার ফলে এদেশে সমকামিতাও ছিল নিষিদ্ধ। ৩৭৭ ধারায় প্রকৃতি বিরুদ্ধ যৌনাচারের জন্য ১০ বছর থেকে যাবজ্জীবন কারাবাসের সাজা ঘোষণার সংস্থান ছিল। কিন্তু এদিনের রায়ের ফলে ভারতে সমকামিতা আর কোনও অপরাধ রইল না।  একযোগে বিচারপতিদের পর্যবেক্ষণ, ব্যক্তি স্বাধীনতার অন্যতম প্রধান শর্ত-ই হল ব্যক্তিগত পছন্দের স্বীকৃতি। পুরনো সমস্ত ধ্যানধারণাকে দূরে সরিয়ে নাগরিকদের সম অধিকারের পক্ষে রায় দেন বিচারপতিরা।

২০০১ সালে দিল্লি হাইকোর্টে প্রথমবার ভারতীয় সংবিধানের ৩৭৭ ধারাকে চ্যালেঞ্জ করে সমকামিতার পক্ষে সওয়াল করে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা নাজ ফাউন্ডেশন। ২০০৯ সালে দিল্লি হাইকোর্ট , সমকামিতার পক্ষেই রায় দেয়। দুজন প্রাপ্তবয়স্কের তাদের স্বেচ্ছায় যৌন সম্পর্কের মধ্যে নাক গলানোকে ব্যক্তি পরিসরের  অধিকারকে লঙ্ঘন করা বলেই রায় দিয়েছিল আদালত। কিন্তু ২০১৩ সালে সুপ্রিম কোর্টে সেই রায় খারিজ হয়ে যায়। ৩৭৭ ধারার  সাংবিধনিক বৈধতা আছে বলে রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট। ফের শুরু হয় আইনি লড়াই। দীর্ঘ লড়াইয়ের পর এদিন রায়ে অবশেষে স্বস্তির হাসি সমকামিতার স্বীকৃতির পক্ষে সওয়ালকারীদের মুখে।

 সেই ব্রিটিশ আমলের ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী, সম লিঙ্গে যৌন সম্পর্ক এদেশে অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হয়। মামলা চলাকালীন ৩৭৭ ধারা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের মতামত জানতে চেয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। প্রথম মতামত দেওয়ার জন্য সময় চেয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। পরে তারা জানায়, সম্মতির ভিত্তিতে সম লিঙ্গের যৌন সম্পর্কের আইনি বৈধতা সংক্রান্ত বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিক শীর্ষ আদালতই। এদিন রায় ঘোষণ করে সুপ্রিম কোর্ট সাফ জানাল, ৩৭৭ ধারা একতরফা ও অপ্রাসঙ্গিক।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top