Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১:৩৯ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
আ'লীগ ও মহাজোটের মনোনয়ন ঘোষণা দিন পাঁচেক দেরি হবে : ওবায়দুল কাদের বিকৃত ইতিহাস থেকে দেশকে মুক্ত করতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী ঝিনাইদহে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান সমাপ্ত, আটক ১ সশস্ত্র বাহিনী দিবসে শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা ঝিনাইদহে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বাড়ি ঘিরে রেখেছে র‌্যাব কথিত বন্দুকযুদ্ধে ৪ মাদক ব্যবসায়ী নিহত প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন নির্বাচনি জোটের শরিক জাতীয় পাটি পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) আজ  প্রধানমন্ত্রীর হাতে ৩৮টি আসনের তালিকা তুলে দিয়েছেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী হেলমেট পরে হামলার নির্দেশ দিয়েছিল বিএনপি নেতারা

এক নজরে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে কলঙ্কিত করা খেলোয়াড়েরা


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ৯:২১ পিএম:
এক নজরে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে কলঙ্কিত করা খেলোয়াড়েরা

রুবেল হোসেন : ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে এই পেসারের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন চিত্রনায়িকা নাজনীন আক্তার হ্যাপী৷ অভিযোগ, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন৷ মামলার জের ধরে জেলে যেতে হয় রুবেলকে৷ ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে অংশ নিতে দেশ ছাড়ার আগে তাঁকে আদালতের অনুমতি নিতে হয়েছিল৷ পরে নির্দোষ প্রমাণিত হয়ে মুক্তি পান রুবেল৷

আরাফাত সানি : নাসরিন সুলতানা নামে এক নারী ২০১৭ সালে আরাফাত সানির বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করেন৷ ঐ তরুণীর দাবি, ২০১৪ সালে সানির সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়েছিল৷ পরবর্তীতে সানি আরেকজনের সঙ্গে সংসার শুরু করেন৷ একসময় সানি ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে নাসরিনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি তাঁকে পাঠান বলে অভিযোগ তাঁর৷ সেসব ছবি অন্তর্জালে ছড়িয়ে দেবারও নাকি হুমকি দিয়েছিলেন সানি৷ এই ঘটনায় সানি গ্রেফতার হয়ে ৫৩ দিন কারাগারে ছিলেন৷

শাহাদাত হোসেন : শিশু গৃহকর্মী নির্যাতনের মামলায় ২০১৫ সালে প্রায় দুইমাস জেলে ছিলেন এই পেসার৷ পরে ঐ গৃহকর্মীর পরিবারের সঙ্গে সমঝোতা হলে মামলা থেকে মুক্তি পান তিনি৷ শাহাদাত ও তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা হলে প্রথমে তাঁরা আত্মগোপনে চলে গিয়েছিলেন৷ একমাস পর পুলিশ শাহাদাতের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করলে পরদিন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চেয়েছিলেন শাহাদাত৷ কিন্তু আদালত জামিন না দিয়ে তাঁকে কারাগারে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন৷

মোহাম্মদ শহীদ : জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে এই পেসার অন্য মেয়েদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন বলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে অভিযোগ করেছিলেন শহীদের স্ত্রী ফারজানা আক্তার৷ তিনি বলেন, শহীদ নাকি একবার তাঁকে ছাদে নিয়ে গিয়ে ধাক্কা মেরে ফেলে দিতেও চেয়েছিলেন৷ এসব ঘটনায় মামলা করার পরিকল্পনার কথা জানালে ভয়ে আবার সংসার শুরু করেছেন শহীদ৷

সাব্বির আহমেদ : ২০১৬ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) চলার সময় চট্টগ্রামে নিজের হোটেল কক্ষে ‘নারী অতিথি’ নিয়ে রাত্রিযাপন করার অপরাধে সাব্বিরকে মোটা অঙ্কের জরিমানা করা হয়েছিল৷ এরপর গত বছরের ডিসেম্বরে জাতীয় লিগের ম্যাচ চলাকালীন এক কিশোর দর্শককে পিটিয়ে আবারও বোর্ডের আদালতে হাজির হতে হয়েছিল সাব্বিরকে৷ সবশেষ কিছুদিন আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ চলার সময় ফেসবুকে দুই সমর্থককে অকথ্য গালিগালাজ করেন তিনি৷

আল আমিন হোসেন : চট্টগ্রামে হোটেল কক্ষে ‘নারী অতিথি’ নিয়ে যাওয়ায় আল আমিনকেও জরিমানা করা হয়েছিল৷ এছাড়া ‘গুরুতর শৃঙ্খলাবহির্ভূত কর্মকাণ্ডে’ জড়িয়ে পড়ায় ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ থেকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছিল তাঁকে৷

নাসির হোসেন : সম্প্রতি নাসির হোসেনের সঙ্গে এক তরুণীর ফোন কথোপকথনের অডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল৷ ঐ তরুণী নিজেকে নাসিরের বান্ধবী পরিচয় দিয়েছেন৷ এরপর সেই তরুণী ফেসবুক লাইভে এসেও নাসিরের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ আনেন৷

মোসাদ্দেক হোসেন : সম্প্রতি তাঁর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবির মামলা করেন স্ত্রী সামিয়া শারমীন৷ এতে উল্লেখ করা হয়, ছয় বছর আগে তাঁদের বিয়ে হলেও সেটি গোপন রাখেন মোসাদ্দেক৷ জাতীয় দলে সুযোগ পাবার পর অন্য মেয়েদের সঙ্গে মোসাদ্দেক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন বলেও অভিযোগ তাঁর স্ত্রীর৷ তবে মোসাদ্দেকের দাবি, বনিবনা না হওয়ায় দিন দশেক আগেই সামিয়াকে তালাক দিয়েছেন তিনি৷


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top