Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৯:৫৩ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
জোটের শরিকরা আনুমানিক ৬৫ থেকে ৭০ আসন পেতে পারে : ওবায়দুল কাদের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মনোনয়নে ‘চুলচেরা বিশ্লেষণ’ করছে আওয়ামী লীগ  আ'লীগে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৮,  বিএনপি জোটে ১১   আসন্ন বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত | প্রজন্মকণ্ঠ এ পর্যন্ত ১১টি টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ  আতঙ্কিত ও ক্ষুব্ধ রোহিঙ্গারা, প্রত্যাবাসন স্থগিত  ক্ষমা চাইতে ফখরুলকে ছাত্রলীগের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলো ছাত্রলীগ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচালের যড়যন্ত্র সফল হবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০ ডিসেম্বরই নির্বাচন, পেছানোর সুযোগ নেই : নির্বাচন কমিশন সচিব প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী রবিবার

বিজিবি-বিএসএফ সম্মেলন : সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার অঙ্গীকার | প্রজন্মকণ্ঠ 


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১০:১৩ এএম:
বিজিবি-বিএসএফ সম্মেলন : সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার অঙ্গীকার | প্রজন্মকণ্ঠ 

ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীর কোনো অস্তিত্ব নেই বলে ভারতকে জানিয়েছে দিয়েছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম। একইসঙ্গে সীমান্তে বাংলাদেশি নাগরিক হতাহতের ঘটনা শূন্যের কোঠায় নেমে না আসায় তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

নয়াদিল্লিতে বিজিবি ও ভারতীয় সীমান্ত বাহিনী-বিএসএফের মহাপরিচালক পর্যায়ে ছয়দিনের ৪৭তম সীমান্ত সম্মেলন আজ (শুক্রবার) যৌথ বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মুহম্মদ মোহসিন রেজা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সম্মেলনে বিএসএফ মহাপরিচালক ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীদের অনুসন্ধানে বিজিবিসহ বাংলাদেশি অন্যান্য সংস্থার সহযোগিতার প্রশংসা করেন। তিনি এবিষয়ে আরো সহযোগিতা অব্যাহত রাখার অনুরোধ জানালে জবাবে বিজিবি মহাপরিচালক বলেছেন, “বাংলাদেশ কখনই তার ভূমি অন্য কোনো দেশের বিরুদ্ধে কোনো অপরাধী বা সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে ব্যবহারের সুযোগ দেয় না।”

সীমান্তে বাংলাদেশি নাগরিক হতাহতের ঘটনা রোধে বিএসএফ পদক্ষেপ নেওয়ায় বিজিবি মহাপরিচালক ধন্যবাদ জানালেও হতাহতের ঘটনা এখনো শূন্যের কোঠায় নেমে না আসায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

জবাবে বিএসএফ মহাপরিচালক বলেন, সীমান্তে হতাহতের ঘটনা এড়াতে বিএসএফ নন-লিথেল অস্ত্র ব্যবহার করছে। এমনকি সশস্ত্র সীমান্ত অপরাধীদের বিপদজনক আক্রমণের শিকার হয়েও বিএসএফ সর্বোচ্চ সহিষ্ণুতা প্রদর্শন ও ন্যূনতম শক্তি প্রয়োগের নীতি অনুসরণ করে যাচ্ছে। 

অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম বন্ধ করাসহ তাদের হতাহতের ঘটনা শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে উভয়পক্ষের প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণ করাসহ সীমান্ত অতিক্রমকারী নাগরিকদের নিজদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কাছে হস্তান্তরে সম্মেলনে উভয়পক্ষ একমত হয়।

বিএসএফ মহাপরিচালক ভারতীয় জাল মুদ্রাপাচার রোধে সহযোগিতা দেওয়ার জন্য বিজিবিসহ বাংলাদেশের অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর প্রশংসা করেন। একইসঙ্গে মাদক, অস্ত্র ও স্বর্ণ পাচারসহ সবধরনের চোরাচালান বন্ধে একে অপরের গৃহীত পদক্ষেপ অব্যাহত রাখতে সম্মত হয়েছন।

উভয় মহাপরিচালক যশোর সীমান্তে ‘ক্রাইম ফ্রি জোনের’ কার্যকারিতার প্রশংসা করেন এবং অন্যান্য সীমান্তে পর্যায়ক্রমে ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ ঘোষণা করতে নীতিগতভাবে সম্মতি প্রকাশ করেন।

অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে অংশগ্রহণমূলক আলোচনায় ছয়দিনের এই সম্মেলন সফল হয়েছে উল্লেখ করে পরবর্তী মহাপরিচালক পর্যায়ের সীমান্ত সম্মেলন আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিল ঢাকায় অনুষ্ঠানের বিষয়ে উভয় পক্ষ নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়। 

৩ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া সম্মেলনে বিজিবি মহাপরিচালককের নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করেন। অপরদিকে ২০ সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন বিএসএফ মহাপরিচালক শ্রী কে কে শর্মা।

ছয় দিনব্যাপী সম্মেলন শেষে শুক্রবার দুই বাহিনীর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বিএসএফের মহাপরিচালক কে কে শর্মা দাবি করেছেন, ‘আনন্দের কথা, চলতি বছরে সীমান্তে একজনেরও মৃত্যু হয়নি।’ অবশ্য বাংলাদেশের দুটি বেসরকারি সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) এবং অধিকার বলছে, চলতি বছরের জুন পর্যন্ত বিএসএফের নির্যাতনে ৩ বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top