Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ , সময়- ২:৫১ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় গণসংযোগে মির্জা ফখরুল  বিতর্কিত সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ ও তাঁর রাজনীতি  প্রমাণিত হলো বিএনপি সন্ত্রাসী দল : কাদের  বিবাহবার্ষিকীতে দোয়া চাইলেন ক্রিকেট সুপারস্টার সাকিব টুঙ্গিপাড়া থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলেন সভানেত্রী শেখ হাসিনা  খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিটের আদেশ আগামীকাল  মনোনয়নপত্র ফিরে পাচ্ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিরো আলম নির্বাচনী প্রচার শুরু করবেন শেখ হাসিনা, ১২ ডিসেম্বর সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য ২০১৫ থেকে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ২০৩০

সপ্তাহব্যাপী জাতীয় আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিন শেষ হলো


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ১৪ নভেম্বর ২০১৮ ৭:৪৮ পিএম:
সপ্তাহব্যাপী জাতীয় আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিন শেষ হলো

সপ্তাহব্যাপী জাতীয় আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিন শেষ হলো। দেশের ৮টি বিভাগ, ৩৫টি জেলা এবং ১৯টি উপজেলাসহ মোট ৬২টি স্পটে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দ্বিতীয় দিন আয়কর সংগ্রহ হয়েছে ৫৫১ কোটি ১৫ লাখ ২০ হাজার ৩৯৮ টাকা।

মেলার দ্বিতীয় দিন বুধবার করদাতা ও সেবা গ্রহীতাদের উপচেপড়া ভিড় এবং পদচারণায় মেলা প্রাঙ্গণ ছিলো উৎসবমুখর। আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিনে বিশেষ করে ই-ফাইলিং এবং ই-পেমেন্ট বুথে সম্মানিত করদাতাদের ব্যাপক সাড়া পরিলক্ষিত হয়।

সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পযন্ত বিরতিহীনভাবে চলে। দ্বিতীয় দিন আয়কর সংগ্রহ হয়েছে ৫৫১ কোটি ১৫ লাখ ২০ হাজার ৩৯৮ টাকা।

মেলার পরিধি গতবছরের মেলার চেয়ে কয়েকগুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। রোজ মেলা সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলবে। মেলায় আয়কর রিটার্ন দাখিল, ই-টিআইন গ্রহণ (নতুন ও পুরাতন), ই-পেমেন্ট, ই-ফাইলিং, ই-পেমেন্টের ব্যবস্থা রয়েছে। মেলায় আসা মুক্তিযোদ্ধা, নারী, প্রতিবন্ধী ও প্রবীণ করদাতাদের জন্য রয়েছে আলাদা বুথ।

মেলায় করদাতাদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য রাজধানীর টিএসসি, রামপুরা, বেইলি রোড, মতিঝিল, মিরপুর ও উত্তরা থেকে ১৫টি শাটল বাস নিয়োজিত রয়েছে।

আয়কর মেলা রিটার্নের হিসাব

২০১৮  ২৩৬,৪৫৫      ৬৫,০৫০        ৫,৫১১,৫২০,৩৯৮      ৫,৯২২

২০১৭  ১৫৩,২৬৭      ৩৯,৩৫১        ৫,৪৩৩,০৮৭,৮৫৭     ১,২৮২

পার্থক্য ৮৩,১৮৮        ২৫,৬৯৯        ৭৮,৪৩২,৫৪১ ৪,৬৪০

প্রবৃদ্ধি(%)       ৫৪.২৮ ৬৫.৩১ ১.৪৪   ৩৬১.৯৩

আয়কর মেলার দ্বিতীয় দিন মেলায় বাড়তি আকর্ষণ যোগ করে শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠান কর শিক্ষণ ফোরাম। ভবিষ্যত আয়কর দাতা সৃষ্টি ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে কর সচেতনতা তৈরির জন্য এটি এনবিআরের উদ্বোধনী পদক্ষেপ।

কর শিক্ষণ ফোরামের আওতায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা মেলা পরিদর্শন ও কর বিষয়ে ধারণা লাভ করবেন। কর বিষয়ে ধারণা লাভের পর কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।
 
এরই অংশ হিসেবে বুধবার মেলার দ্বিতীয় দিন ঐতিহ্যবাহী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি, ফিন্যান্স এবং ব্যাংকিং ও ইন্স্যুরেন্স বিভাগের ৪০ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। এরপর তাদের নিয়ে কুইজ প্রতিযোগিতা হয়।

প্রতিযোগিতায় ১০ জন শিক্ষার্খীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। বিজয়ী ১০জন ছাত্রীকে সনদপত্র ও বই দেওয়া হয়।

শিক্ষার্থীদের মাঝে সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরণ করেন সিনিয় সচিব অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ ও চেয়ারম্যান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড জনাব মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া, এনডিসি।

পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন বিভাগকে সনদপত্র প্রদান করা হয়। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) জনাব জিয়া উদ্দিন মাহমুদসহ কর বিভাগের অনান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। আয়কর মেলায় সম্মানিত করদাতাদের স্বতঃস্ফ’র্ত অংশগ্রহণে অভিভূত হয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, আয়কর মেলায় সম্মানিত করদাতাদের উপস্থিতি দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষের আগ্রহের পরিমাণ ক্রমাগতভাবে বাড়ছে।

উৎসবের আমেজে মানুষ দলে দলে আয়কর মেলায় রিটার্ন জমা দিচ্ছে। কোনো রকম হয়রানি ছাড়াই নির্ভয়ে ও স্বাচ্ছন্দ্যে রিটার্ন জমা দিয়ে রশিদ নিচ্ছেন।

কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আয়কর দিতে গিয়ে কেউ যেন কোনো প্রকার ভীতির সম্মূখীন না হন, সে বিষয়ে সর্বদা সচেতন থাকতে হবে। তবেই আশানুরূপ করদাতার সংখ্যা বাড়বে।

তিনি আরো বলেন, সরকার বাজেটে রাজস্বের বড় লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। তার জন্য ভ্যাট ও ট্যাক্সের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হবে। আমরা তার জন্য সাধারণ মানুষকে মোটিভেশন করছি।

পাশাপাশি যারা করের আওতার বাহিরে আছেন, তাদেরকে করনেটে আনার সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। জনবল বৃদ্ধি ও মাঠ পর্যায়ে নতুন নতুন কর অফিস চালু করার কর্মপন্থা নেওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই দু’টো কাজ সুন্দরভাবে করতে পারলে বর্তমানে আমাদের যে পরিমাণ রাজস্ব আহরণ হচ্ছে তার দ্বিগুণ রাজস্ব আহরিত হবে। । আমরা আশা করছি, আগামী ২-৩ বছরে রাজস্ব আহরণে আমূল পরিবর্তন আসবে।

২০১০ সাল থেকে শুরু হওয়া আয়কর মেলার পরিধি এবং মেলার মাধ্যমে আয়কর বিভাগের সেবার পরিসর উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০১৮ সালে দেশব্যাপী সর্বাধিকসংখ্যক ভেন্যুতে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ১৩-১৯ নভেম্বর রাজধানী ঢাকাসহ সব বিভাগীয় শহরে ৭দিন, ৫৬টি জেলা শহরে ৪দিন, ৩২টি উপজেলায় ২ দিন এবং ৭০টি উপজেলায় ১দিনব্যাপী আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top